আট দিন হাজতবাসের পরে বুধবার অন্তবর্তীকালীন জামিন পেলেন শ্রীরামপুরে পোস্টার-কাণ্ডে ধৃত পুলিশ অফিসার সমীর সরকার। এ দিন শ্রীরামপুর আদালতের অতিরিক্ত মুখ্য বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট অমর মাহাতোর এজলাসে সমীরবাবুকে হাজির করানো হয়। বিচারক তাঁর জামিন মঞ্জুর করে ফের ১৭ অগস্ট আদালতে হাজিরার নির্দেশ দেন। ওই মামলা ধৃত অন্য দু’জনও এ দিন জামিন পান।

মামলার সরকারি কৌঁসুলি অতনুকুমার ঘোষ বলেন, ‘‘এ বার ওই পুলিশ অফিসারের হাতের লেখার নমুনা সংগ্রহের কাজ হবে। ওই পোস্টার কে বা কারা লিখেছিলেন, তা জানার চেষ্টা হচ্ছে। লেখাটি বিশেষজ্ঞদের দিয়ে পরীক্ষা করানো হবে।’’

গত ২৯ জুলাই শ্রীরামপুর স্টেশন ও সংলগ্ন এলাকায় সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কাটমানি নেওয়ার অভিযোগে পোস্টার সাঁটানো হয়। একটি পুলিশের গাড়িতে চড়ে এসে কিছু লোক পোস্টার সাঁটায় বলে অভিযোগ ওঠে। সিসিক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখে পুলিশ চুঁচুড়ার খাদিনা মোড় থেকে গাড়িটি আটক করে। গ্রেফতার করা হয় চালক অমর খামরুইকে। ধৃতকে জেরা করে ওই গাড়িরই আর এক আরোহী মহম্মদ মুস্তাফাকেও গ্রেফতার করা হয়। পুলিশের দাবি, জেরায় দু’জনেই ২৯ জুলাই রাতে ওই গাড়িতে জেলা (গ্রামীণ) পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগে (ডিআইবি) কর্মরত থাকা সাব-ইনস্পেক্টর সমীর সরকারের উপস্থিতির কথা জানায়। সমীরবাবু এর আগে পোলবা, জাঙ্গিপাড়া-সহ জেলার বিভিন্ন থানার ওসি ছিলেন। এরপরই গত ৬ অগস্ট পুলিশ ওই অফিসারকে গ্রেফতার করে। যদিও সংশ্লিষ্ট পুলিশ অফিসার আগাগোড়া তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেন।