• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

এ বার ফাঁকা বাড়িতে চুরি নবগ্রামে, আতঙ্ক

Theft in Nabagram in a empty household
লুট: এলোমেলো হয়ে পড়ে রয়েছে ঘরের সব জিনিস। নিজস্ব চিত্র

Advertisement

এলাকার একের পর এক ফাঁকা বাড়িতে চুরির ঘটনার কিনারা করতে কালঘাম ছুটছে উত্তরপাড়া থানার পুলিশের। সেই তালিকায় এ বার কোন্নগরের নবগ্রামের একটি বাড়িও যুক্ত হল। পুলিশের পরামর্শ, বাড়ির সবাইকে কোথাও যেতে হলে যেন স্থানীয় থানা বা ফাঁড়িতে জানিয়ে যান। পুলিশ বাড়ির উপরে নজর রাখবে।  

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নবগ্রামের ‘বি’ ব্লকের বাসিন্দা বাবুলাল সাউ স্ত্রী-মেয়েকে নিয়ে গত শনিবার বিহারে বেড়াতে যান। মেয়ে কলকাতার একটি ইঞ্জিনিয়ারিং প্রতিষ্ঠানের পড়ুয়া। পরীক্ষা থাকায় তি‌নি বুধবার ভোরে ফিরে এসে দেখেন, দরজার তালা ভাঙা। ঘরে ঢুকে দেখেন, আলমারি ভাঙা। জিনিসপত্র লণ্ডভণ্ড অবস্থায় খাটে-মেঝেতে পড়ে রয়েছে। আলমারি থেকে টাকা-গয়না উধাও। ঠাকুরের পিতলের বাসন পর্যন্ত খোয়া গিয়েছে। খবর পেয়ে নবগ্রাম পঞ্চায়েতের স্থানীয় সদস্য মানসী ধর ওই বাড়িতে আসেন। পুলিশও আসে।

পুলিশ জানিয়েছে, দুষ্কৃতীদের চিহ্নিত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। একই দল ওই কাজ করছে কিনা, তা-ও তদন্ত করে জানার চেষ্টা হচ্ছে। থানার এক পুলিশ আধিকারিক বলেন, ‘‘বাড়ির সকলে কোথাও গেলে পুলিশকে তা যেন জানিয়ে যান। তা হলে, ফাঁকা বাড়ির উপরে পুলিশ বাড়তি নজরদারি চালাতে পারবে।’’

জনবহুল ওই এলাকায় এ ভাবে চুরির ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দারা উদ্বিগ্ন। মানসীদেবী ওই বাড়ির পাশেই থাকেন। তিনি বলেন, ‘‘ঘরের অবস্থা দেখে বোঝা যাচ্ছে, দুষ্কৃতীরা দীর্ঘক্ষণ ধরে অপারেশন চালিয়েছে। কিন্তু কেউ টের পাননি। এটা খুবই চিন্তার বিষয়। পুলিশকে নিরাপত্তা জোরদার করার জন্য অনুরোধ করছি। এলাকাবাসীর কাছেও আবেদন রাখছি, বাড়ির সবাই মিলে কোথাও যেতে হলে তাঁরা যেন অন্তত খবর দেন। পুলিশকে জানাব। পুলিশ নজর রাখতে পারবে।’’

 সম্প্রতি উত্তরপাড়া থানা এলাকায় ফাঁকা বাড়িতে চুরির একাধিক ঘটনা সামনে এসেছে। দিন কয়েক আগে মাখলায় একটি ফাঁকা বাড়িতে তালা ভেঙে ঢুকে একাধিক আলমারি থেকে গয়না এবং নগদ টাকা হাতিয়ে নেয় দুষ্কৃতীরা। দু’দিন আগেই নবগ্রামেরই কলেজ রোডের একটি বাড়িতে চুরির চেষ্টা হয়। হিন্দমোটরের একটি বাড়িতেও চুরি হয় সম্প্রতি।

পুলিশের দাবি, ফাঁকা বাড়িতে যাতে চোর না-ঢোকে সে জন্য অনেকেই সচেতন হচ্ছেন। গত তিন দিনে উত্তরপাড়া থানা এলাকায় অন্তত ২০টি পরিবার তাঁদের বাড়িতে না-থাকার খবর পুলিশকে জানিয়ে গিয়েছে। ফলে, পুলিশ বাড়তি সজাগ হয়েছে।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন