তাজপুর সমুদ্র সৈকতে সমুদ্রস্নানে নেমে মঙ্গলবার বিকেলে দুই পর্যটকের  মৃত্যু হল। এছাড়াও আহত হন আরো তিনজন পর্যটক।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত দুই পর্যটকের নাম কালাচাঁদ সাহা (৪৭)ও সাগর মোদক(৪৫)। দুজনেরই বাড়ি কলকাতার বেলঘরিয়ার প্রফুল্ল নগরে।  আহত তিন পর্যটকই প্রাথমিক চিকিৎসার পর হাসপাতাল ছেড়ে পালিয়ে যান বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। এদের মধ্যে একজনের নাম সঞ্জয় বসু বলে পুলিশ জেনেছে।

মন্দারমণি থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রফুল্লনগর থেকে দিঘায় বেড়াতে আসা ১১জনের একটি পর্যটক দল মঙ্গলবার দুপুরে দিঘা থেকে তাজপুরে বেড়াতে আসেন। তাজপুরে এসেই পাঁচজন সমুদ্রস্নানে নামেন। সমুদ্র উত্তাল থাকায় তাজপুর সৈকতে কর্তব্যরত নুলিয়ারা তাঁদের সমুদ্রে নামতে নিষেধ করেন ।কিন্তু নিষেধ উপেক্ষা করেই  পাঁচজন সমুদ্রে নামেন বলে অভিযোগ।

সমুদ্রের উত্তাল ঢেউয়ের টানে তারা পাঁচজনেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন ও  ঢেউয়ের টানে সমুদ্রে তলিয়ে যেতে থাকেন যান। পাঁচ পর্যটককে সমুদ্রে  তলিয়ে যেতে নুলিয়ারা তাদের উদ্ধারে সমুদ্রে নামেন। পরে মন্দারমণি উপকূল থানার পুলিশ  স্পিডবোট নিয়ে সমুদ্রে তল্লাশি শুরু করে। ঘন্টাখানেকের চেষ্টায় পাঁচজনকেই সমুদ্র থেকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করতে পারে নুলিয়া ও মন্দারমণি থানার পুলিশ।

স্থানীয় বড়রাঙ্কুয়ায় ব্লক হাসপাতালে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হলে কালাচাঁদ সাহা ও সাগর মোদককে মৃত বলে জানানো হয়। বাকি তিনজন প্রাথমিক চিকিৎসার পর হাসপাতাল থেকে কাউকে কিছু না বলেই দিঘায় চলে যান বলে অভিযোগ।