সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

এক দিনেই আক্রান্ত ৬, পরিযায়ীরাই মাথাব্যথা

নিজস্ব প্রতিবেদন

med
হাসপাতালের পথে এগরার করোনা আক্রান্ত। নিজস্ব চিত্র

উদ্বেগ বাড়াচ্ছেন ভিন্ রাজ্য ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকরাই। তাঁদের সূত্রে জেলায় বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।

শনিবার এক বৃদ্ধ-সহ পূর্ব মেদিনীপুরের দু’জনকে পাঁশকুড়া করোনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। রবিবার জেলায় আরও ৬ জন করোনা আক্রান্তের হদিস মিলল। সকলেই পরিযায়ী। ফিরেছেন মহারাষ্ট্র ও দিল্লি থেকে। জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রের খবর, আক্রান্তদের মধ্যে তমলুকের শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লকের এক মহিলা, হলদিয়া পুরসভা এক যুবক, হলদিয়া ব্লকের এক যুবক, এগরা-১ ব্লকের এক কিশোর, পটাশপুর-২ ব্লকের এক যুবক ও পাঁশকুড়া-১ ব্লকের এক ব্যক্তি রয়েছেন। রবিবার এঁদের সকলকেই পাঁশকুড়ার বড়মা করোনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক নিতাইচন্দ্র মণ্ডল বলেন, ‘‘জেলায় আরও ৬ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এঁদের সবাই কর্মসূত্রে ভিন্ রাজ্যে থাকতেন। আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে নমুনা পরীক্ষা করা হবে।’’

জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, তমলুকের শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লকের রঘুনাথপুর ২ পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা করোনমা আক্রান্ত মহিলা স্বামীর কর্মসূত্রে দিল্লিতে থাকতেন। তিনি কিছুদিন আগে বাড়ি ফেরেন। রবিবার তাঁর করোনা রিপোর্ট পজ়িটিভ এসেছে। হলদিয়া পুরসভার ডিঘাসিপুর ও হলদিয়া ব্লকের দেউলপোতা এলাকার দুই যুবকই কর্মসূত্রে মহারাষ্ট্রে একই সঙ্গে থাকতেন। সম্প্রতি গাড়িতে বাড়ি ফেরেন। একই ভাবে পাঁশকুড়ার প্রতাপপুর-২ পঞ্চায়েত এলাকার যে ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, তিনিও কর্মসূত্রে মহারাষ্ট্রে থাকতেন। গত ১৪ মে তিনি পাঁশকুড়ায় ফেরেন।

মহারাষ্ট্র যোগ রয়েছে পটাশপুর-২ ব্লকের বছর বত্রিশের  করোনা সংক্রমিত যুবকেরও। গত ১৭ মে পাঁচ সঙ্গীর সঙ্গে মহারাষ্ট্রের কর্মস্থল থেকে ওই যুবক ট্রেনে খড়্গপুরে আসেন। তারপর এগরায় নিভৃতবাস কেন্দ্রে (কোয়রান্টিন সেন্টার) ছিলেন। এ দিন করোনা রিপোর্ট পজ়িটিভ আসার পরে ওই যুবকের সংস্পর্শে আসা ৫২ জনকে চিহ্নিত করা হয়। এর মধ্যে ২৩ জনকে চণ্ডীপুর করোনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এগরা-১ ব্লকের যে কিশোর করোনা আক্রান্ত হয়েছে, সে-ও বাবা-মায়ের কর্মসূত্রে মহারাষ্ট্রে থাকত। কয়েকদিন বাবা-মা-ছেলে বাড়ি ফিরেছিলেন। প্রত্যকের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষায় পাঠানো হয়েছিল। এ দিন ছেলের রিপোর্ট পজ়িটিভ এসেছে।

করোনা চিকিৎসায় এক সময় সাফল্যের মুখ দেখা এই জেলায় একের পর এক পরিযায়ী আক্রান্ত হওয়ায় উদ্বেগ বেড়েছে। অনেকেই বলছেন, সংক্রমণ ঠেকাতে ভিন্ রাজ্য ফেরতে সকলকে প্রাথমিক ভাবে নিভৃতাবাসে রাখা জরুরি। প্রশাসন অবশ্য তেমন সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে ভিন্ রাজ্য ফেরতদের করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা হচ্ছে ধাপে ধাপে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন