• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দায়িত্ব ফেরত চেয়ে চিঠি দিবাকরের

Dibakar Jana
দিবাকর জানা।—ফাইল চিত্র।

কোলাঘাট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের পদস্থ আধিকারিককে মারধরের অভিযোগে তৃণমূল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য সাসপেন্ড হয়েছিলেন। খুইয়ে ছিলেন পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির পদ। তৃণমূলের সেই সাসপেন্ডেড নেতা দিবাকর জানা জেলাশাসককে চিঠি দিয়ে নিজের পদ ফিরে পাওয়ার আর্জি জানালেন। যা নিয়ে শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লক তৃণমূলের কোন্দল ফের প্রকাশ্যে এসেছে।  

গত ১ জুন পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসক পার্থ ঘোষের কাছে আবেদন জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন দিবাকর। এক জন সাসপেন্ডেড নেতার এভাবে দ্বায়িত্ব ফিরে পাওয়া নিয়ে জেলাশাসককে চিঠি দেওয়ায় পঞ্চায়েতের পাশপাশি ব্লক রাজনৈতিক মহলেও আলোড়ন পড়েছে। চিঠি দেওয়ার বিষয়’টি স্বীকার করে দিবাকর বলেন, ‘‘পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির অবর্তমানে সহ-সভাপতিকে ভার দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন জেলাশাসক। কিন্তু পঞ্চায়েত আইন অনুযায়ী অনাস্থা প্রস্তাব এনে আমাকে সভাপতি পদ থেকে সরানো হয়নি। পঞ্চায়েত আইন মেনেই আমি জেলাশাসকের কাছে চিঠি দিয়ে পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির দ্বায়িত্ব ফেরত নেওয়ার আর্জি জানিয়েছি।’’ 

তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের আধিকারিককে মারধরে দিবাকরকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। আদালতের নির্দেশে দিবাকর জেল হেফাজতে থাকার সময় গত ১৭ ফেব্রায়ারি জেলা প্রশাসনের  নির্দেশে ওই পঞ্চায়েত  সমিতির দ্বায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল সহ-সভাপতি শোভা সাহুকে। তারপর প্রায় সাড়ে তিন মাস কেটে গিয়েছে। ইতিমধ্যে আদালতের নির্দেশে জামিন পেয়েছেন দিবাকর। আর এরপর ফের রাজনৈতিক জমি দখলের লড়াইয়ে নেমে পড়েন দিবাকর।

লকডাউন পর্বে শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লকের বল্লুক-১ গ্রাম পঞ্চায়েতে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে গিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন তিনি। সে সময় দিবাকর খাদ্যের প্যাকেটে পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর ছবি দেওয়ার পাশাপাশি নিজেকে পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি হিসাবে উল্লেখ করেছিলেন।

ওই বিতর্কের রেশ কাটার আগেই দায়িত্ব ফেরত চেয়ে চিঠি দেওয়ায় দলের অন্দরেই শোরগোল পড়েছে। উল্লেখ্য, ‘আমপান’ ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরিতে দুর্নীতির  অভিযোগ তুলে পঞ্চায়েত সমিতির বর্তমান কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিডিও এবং জেলাশাসকের কাছে সম্প্রতি স্মারকলিপি দিয়েছেন দিবাকরের অনুগামী কয়েকজন তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধান ও পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য। 

কিন্তু দায়িত্ব ফেরত চাওয়ার বিষয়ে জেলা তৃণমূলের নেতৃত্বকে জানিয়েছেন? দিবাকরের জবাব, ‘‘আমি দল থেকে সাসপেন্ড রয়েছি। তাই এবিষয়ে দলীয় নেতৃত্বকে জানানো হয়নি। এটা আমি সম্পূর্ণ নিজের দ্বায়িত্বে করেছি।’’ দিবাকরের চিঠির ব্যাপারে শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লক তৃণমূল আহ্বায়ক শরৎ মেট্যা বলেন, ‘‘বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। জেলা নেতৃত্বকেও জানিয়েছি। সাসপেন্ড থাকা দিবাকরকে যাতে সভাপতি পদের দ্বায়িত্ব না দেওয়া হয়, সে জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের আর্জি  জানিয়েছি।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন