• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মমতার পথে আটক বিজেপি নেতা

Arrest
প্রতীকী ছবি।

দু’দিনের পশ্চিম মেদিনীপুর সফরে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর এই সফরেও মঙ্গলবার জুড়ে গেল ‘জয় শ্রীরাম’ বিতর্ক।

মঙ্গলবার কোলাঘাট থেকে গিয়েছিলেন বীরসিংহের জনসভায় মমতা। সেখান থেকে ফেরার পথে তাঁর কনভয়ের রাস্তা আটকে মদ্যপ অবস্থায় গোলমাল পাকানোর অভিযোগে পুলিশ দুই বিজেপি নেতাকে আটক করেছে। যদিও বিজেপি’র অভিযোগ, কনভয়ের পাশে কয়েকজন জয় শ্রীরাম স্লোগান দেওয়াতেই ওই দুই জনকে আটক করা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় এসে কোলাঘাট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের অতিথি নিবাসে উঠেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এ দিন ঘাটাল-পাঁশকুড়া রাজ্য সড়ক ধরে তিনি বীরসিংহে বিদ্যাসাগরের জন্মভিটের উদ্দেশে রওনা দেন। বীরসিংহের কর্মসূচি সেরে ফেরার পথেই বিপত্তি। ওই একই পথ ধরে কোলাঘাটের দিকে আসছিল মুখ্যমন্ত্রীর কনভয়। কনভয় কোলাঘাটে আসার আগেই থেকে পাঁশকুড়ার যশোড়া কালী বাজারের সামনে জড়ো হয়েছিলেন কয়েকজন বিজেপি নেতা-কর্মী। তাঁদের মধ্যে ছিলেন কোলাঘাট মণ্ডল-১ এর বিজেপি সভাপতি সঞ্জয় পয়ড়্যা এবং বৃন্দাবনচক শক্তি প্রমুখের সভাপতি শ্রীমন্ত সর্দার।        

নাম প্রকাশে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, মুখ্যমন্ত্রীর কনভয় যশোড়া কালী বাজারে ঢোকার সময়ই সেখানে উপস্থিত বিজেপির লোকজন ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিতে শুরু করেন। কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীরা তখন রাস্তার পাশ থেকে একটু দূরে সরিয়ে নিয়ে গিয়ে তাঁদের থামানোর চেষ্টা করেন। অভিযোগ, ওই সময় বিজেপির লোকজন আরও জোরে জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেন এবং অশালীন মন্তব্যও করেন। তখন তমলুকের এসডিপিও’র নির্দেশে পাঁশকুড়া থানার পুলিশ সঞ্জয় এবং শ্রীমন্তকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। তাঁদের বাড়ি পাঁশকুড়া থানার বৃন্দাবনচক গ্রামে।

উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রীর কনভয় যাওয়ার সময় জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেওয়ায় এর আগেও বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে পুলিশ পদক্ষেপ করেছে। লোকসভা ভোটের আগে পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনায় মুখ্যমন্ত্রীর কনভয়ের সামনে ‘জয় শ্রীরাম’ বলার ‘অপরাধে’ তিনজন বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। সেবার গাড়ি থেকে নেমে গিয়েছিলে খোদ মুখ্যমন্ত্রী। এ নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। এবার সেই পশ্চিম মেদিনীপুর সফরেই একই রকমের বিতর্ক সামনে এল।

এ দিনের ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপি’র তমলুক সাংগঠনিক জেলার সভাপতি নবারুণ নায়েক বলেন, ‘‘ওই দুই নেতা দেউলিয়ায় দলীয় বৈঠকে যোগ দিতে আসছিলেন। সে সময় ওখানে কয়েকজন যুবক জয় শ্রীরাম ধ্বনি দিয়েছিলেন। পুলিশ ওদের ধরতে গেলে ওই দুই বিজেপি নেতা প্রতিবাদ করেন। তখন পুলিশ ওঁদের আটক করে।’’ নবারুণের কটাক্ষ, ‘‘এ রাজ্যে জয় শ্রীরাম ধ্বনি শুনলে মুখ্যমন্ত্রীর গোঁসা হয়। কোনদিন উনি হয়তো জাতীয় সঙ্গীত শুনলেও গ্রেফতারির নির্দেশ দেবেন।’’

তমলুকের এসডিপিও অতীশ বিশ্বাস অবশ্যের বক্তব্য, ‘‘ওই দু-জন মুখ্যমন্ত্রীর কনভয় ঢোকার সময় রাস্তায় মাতলামি করছিলেন। তাই তাঁদের আটক করা হয়েছে।’’ এসডিপিও’র মন্তব্যের প্রেক্ষিতে নবারুণের পাল্টা বক্তব্য, ‘‘সঞ্জয় মদ খান না। রাস্তায় এত মদ্যপ থাকতে পুলিশ বেছে বেছে বিজেপি নেতাদেরই খুঁজে পেল!’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন