রসগোল্লার পর এ বার সীমানা। ওড়িশার সঙ্গে সংঘাতে পশ্চিমবঙ্গ। শুক্রবার উভয় রাজ্যের মধ্যে প্রশাসনিক বৈঠকেও জট কাটল না।

ঘটনার সূত্রপাত গত মঙ্গলবার। দিঘা সংলগ্ন পদিমা-১ পঞ্চায়েত এলাকায় ওড়িশা প্রশাসন সাধারণ শৌচাগার তৈরির শুরু করে। জায়গাটি নিজেদের বলে পুলিশ পাঠিয়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয় এ রাজ্যের প্রশাসন। ওড়িশা প্রশাসনও কাজ জারি রাখার জন্য পাল্টা পুলিশ নামায়। সমস্যা সমাধানে বৃহস্পতিবার ওড়িশার তালসারি থানায় দু’রাজ্যের প্রশাসনিক আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠক হয়। কাঁথির মহকুমাশাসক রিনা নিরঞ্জন, এসডিপিও ইন্দিরা মুখোপাধ্যায় ও রামনগর-১ বিডিও অনুপম বাগের উপস্থিতিতে ওই বৈঠকে কোনও সুষ্ঠ সমাধান হয়নি। ফলে পরে সচিব পর্যায়ের বৈঠকে বসার
সিদ্ধান্ত হয়েছে।

চূড়ান্ত সীমানা নির্ধারণ না-হওয়া পর্যন্ত উদয়পুর সৈকতে যাওয়ার রাস্তা থেকে ওয়াচ টাওয়ারের মধ্যবর্তী জায়গায় কোন নির্মাণ কাজ করা যাবে না বলে দুই রাজ্যের আধিকারিক সম্মত হয়েছেন বলে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে। 

পরিদর্শনে আইজি। তমলুক থানা ও সার্কেল ইনস্পেক্টরের অফিস পরিদর্শনে এলেন রাজ্য পুলিশের আইজি (পশ্চিমাঞ্চল) রাজীব মিশ্র। শুক্রবার দুপুরে তিনি তমলুক থানায় আসেন। আইজি (পশ্চিমাঞ্চল) তমলুক থানায় এসে বিভিন্ন মামলার বিষয় খতিয়ে দেখেন। পুলিশের একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, সম্প্রতি তমলুক থানা এলাকায় একাধিক ঘটনায় আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি অবনতি নিয়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। তাই এ দিন উচ্চ-পদস্থ আধিকারিকের তমলুকের আইনশৃঙ্খলা খতিয়ে দেখতে আসা তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।