• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ফের রেশনে গম, এ বার বিনামূল্যে

1
প্রতীকী ছবি

লকডাউনে খাবারের জোগান দিতে গত এপ্রিল থেকে রেশনে বিনামূল্যে খাদ্যসামগ্রী দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকার। জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা যোজনার অন্তর্ভুক্ত রেশন কার্ড গ্রাহকদের জন্য চাল, আটা, ডাল বরাদ্দ করা হয়েছে। রাজ্য সরকারও তাদের খাদ্য সুরক্ষা যোজনা অন্তর্ভুক্ত গ্রাহকদের বিনামূল্যে চাল এবং আটা দিচ্ছে। এবার আগামী অগস্ট থেকে জাতীয় এবং রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা যোজনার গ্রাহকদের গম দেওয়ারও ব্যবস্থা করা হয়েছে। 
খাদ্য দফতর ও রেশন ডিলার সংগঠন সূত্রের খবর, রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা যোজনা-১ (আরকেএসওয়াই-১) রেশন কার্ড গ্রাহকেরা স্বাভাবিক সময়ে প্রতি মাসে মাথাপিছু দু’কিলোগ্রাম চাল এবং দু’কিলোগ্রাম আটা পেতেন। এ জন্য চাল এবং গমের জন্য কিলোগ্রাম পিছু দু’টাকা করে দিতে হয় (লকডাউন পর্বে গমের বদলে আটা দেওয়া হত)। রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা যোজনা-২ রেশন কার্ড গ্রাহকরা প্রতি মাসে এক কিলোগ্রাম করে চাল এবং গম পেতেন। তাতে প্রতি কিলোগ্রাম চালের জন্য ১৩ টাকা এবং গমের জন্য ন’টাকা করে দিতে হয়। 
অন্যদিকে, জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা যোজনার রেশন গ্রাহকদের মধ্যে অন্তোদয় অন্ন যোজনায় (এএওয়াই) পরিবার পিছু ১৫ কিলোগ্রাম চাল এবং ১৯ কিলোগ্রাম আটা দু’টাকা কিলোগ্রাম দরে দেওয়া হয়। আর পিএইচএইচ এবং এসপিএইচএইচ রেশন কার্ড প্রতি মাসে মাথাপিছু দু’কিলোগ্রাম চাল ও ২ কিলোগ্রাম ৮৫০ গ্রাম আটা পান যথাক্রমে ২ টাকা ও ৩ টাকা ৫০ পয়সা কিলোগ্রাম দরে। তবে লকডাউন পর্বে ওই বরাদ্দ ছাড়াও  এপ্রিল থেকে মাথা পিছু অতিরিক্ত পাঁচ কিলোগ্রাম চাল এবং পরিবার পিছু এক কিলোগ্রাম করে ডাল দেওয়া হচ্ছে বিনামূল্যে।
জেলা খাদ্য দফতর সূত্রের খবর, অগস্ট থেকে জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা যোজনায় অতিরিক্ত পাঁচ কিলোগ্রাম চালের জায়গায় দু’কিলোগ্রাম চাল এবং তিন কিলোগ্রাম গম দেওয়া হবে। আর রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা যোজনা-১ (আরকেএসওয়াই-১) এর গ্রাহকেরা মাথা পিছু দু’কিলোগ্রাম চাল এবং তিন কিলোগ্রাম করে গম পাবেন। রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা যোজনা-২ (আরকেএস-২) এর গ্রাহকেরা মাথা পিছু এক কিলোগ্রাম চাল এবং এক কিলোগ্রাম গম পাবেন। তবে তা দেওয়া হবে বিনামূল্যে। জেলা খাদ্য দফতরের নিয়ামক সৈকত চক্রবর্তী বলেন, ‘‘জাতীয় এবং রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা যোজনার গ্রাহকদের অগস্ট মাসে বিনামূল্যে চাল এবং গম দেওয়া হবে। রেশন দোকানের মাধ্যমে এই খাদ্য সামগ্রী বিলির জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’’
পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় মোট ৮৩৩ জন রেশন ডিলার রয়েছেন। আগামী ১ অগস্ট থেকে বরাদ্দ খাদ্য সামগ্রী বণ্টনের জন্য ওই সব রেশন ডিলারদের কাছে নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপার ‘ওয়েস্টবেঙ্গল এমআর ডিলার্স অ্যাসোসিয়েশনে’র জেলা সম্পাদক মাধব পাঁজা বলেন, ‘‘নতুন করে বরাদ্দ সামগ্রী গ্রাহকদের বণ্টনের জন্য খাদ্য দফতরের নির্দেশ এসেছে। সরকারি নিয়ম মেনে তা বিলির জন্য সাংগঠনিকভাবেও  ইতিমধ্যে সে নিয়ে ডিলারদের বলা হয়েছে।’’

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন