পুলিশের সহকারি সাব ইন্সপেক্টর সেজে প্রতারণা করার অভিযোগে পুলিশ এক যুবককে গ্রেফতার করল। বহরমপুর শহরের উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের বাস টার্মিনাস থেকে সোমবার বিকেলে পুলিশ ওই যুবককে পাকড়াও করে। ধৃতের কাছ থেকে পুলিশের পোশাক মিলেছে। জেরার মুখে ধৃত নিজেদের ঠিকানা নির্দিষ্ট করে বলছে না। পুলিশের দাবি, নিজেকে আকাশ চৌধুরী বলে পরিচয় দিয়ে ধৃত জানিয়েছে, তার বাড়ি উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে। আবার আরেক বার সে দাবি করেছে, তার বাড়ি দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুরে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের বাস চালক নিবিড় দাসের বাড়ি মুর্শিদাবাদের সুতিতে। আড়াই মাস আগে বাসের যাত্রী আকাশ চৌধুরীর সঙ্গে নিবিড়বাবুর আলাপ হয়। নিবিড়বাবুর দাবি, আকাশ তাঁকে জানিয়েছে, তার বাবা পীযূষ চৌধুরী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার। মা সুস্মিতাদেবী কলকাতা হাইকোর্টের সরকার পক্ষের আইনজীবী। সে নিজে পুলিশের এএসআই। রায়গঞ্জ থানায় কর্মরত। নিবিড়বাবু বলেন, ‘‘বিদ্যুৎ দফতরে চাকরি দেওয়ার নাম করে আমার শ্যালকের কাছ থেকে দিন সাতেক আগে ১৬ হাজার ৪০০ টাকা নিয়েছে আকাশ। তারপর দিন চারেক থেকে আকাশ যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। বহরমপুর থানায় বিষয়টি জানাই।’’ সোমবার বিকেলে উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের একটি বাসের ভিতরে আকাশকে আচমকা হাতেনাতে ধরে ফেলেন নিবিড়বাবু। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।