• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

স্কুলছাত্রীর দেহ কুপার্সে

Dead Body

চাকদহের পর কুপার্স ক্যাম্প। ফের খো খো খেলোয়াড় আত্মঘাতী।

পুলিশ জানায়, মৃতের নাম পিঙ্কি মণ্ডল (১৪)। রবিবার রানাঘাট থানার থানার কুপার্স ক্যাম্পে ঘটনাটি ঘটে। সে কুপার্স কলোনি হাইস্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। পিঙ্কি ভাল খো খো খেলোয়াড় ছিল। এর আগে চাকদহের মুকুন্দনগরে দীপা মণ্ডল নামে এক খো খো খেলোয়াড় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হয়। মোবাইল নিয়ে তার দাদা বকাবকি করায় সে আত্মঘাতী হয়েছিল বলে জানতে পারে পুলিশ।

প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশ জানায়, গায়ে আগুন লাগিয়ে পিঙ্কি নামে ওই স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে বলে অনুমান করা হচ্ছে। তবে কেউ অভিযোগ করেনি। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বেরিয়েছিল পিঙ্কি। রাত দশটার পরে সে বাড়ি ফেরে। রাত করে বাড়ি ফেরার তার মা শম্পা মণ্ডল তাকে বকাবকি করে। এর পর সে খাওয়া দাওয়া সেরে ঘুমতে যায়। রবিবার সকাল সাড়ে আটটা নাগাদ পাশের ঘরে বসে যখন তার মা চা খাচ্ছিল ও টিভি দেখছিল, সেই সময়ে পিঙ্কি গায়ে কেরোসিন তেলে ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। ধোঁয়া দেখে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। প্রথমে রানাঘাট মহকুমা হাসপাতাল ও পরে তাকে কল্যাণীর হাসপাতালে আনা হলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়। কুপার্স ক্যাম্প নোটিফায়েডের পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের সুভাষপল্লি এলাকায় বাড়ি পিংকিদের। বাবা গণেশ মণ্ডল কাজের সুবাদে মালেশিয়ায় থাকেন। মা শম্পাদেবী গৃহবধূ। লেখাপড়ার পাশাপাশি সে ভাল খো খো খেলত।

জেলা খো-খো অ্যাসোসিয়েশন সম্পাদক বিজন দাস বলেন, “আমরা ভাল খেলোয়াড় হারালাম। মাস দেড়েক আগে বর্ধমানে রাজ্য স্কুল খো খো প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিল। আগামী ১৬ জানুয়ারি জেলা খো খো প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল। তার আগেই সে চলে গেল।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন