দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার পরে সিপিএম ঘুরে দাঁড়ানোর যে মরিয়া চেষ্টা শুরু করেছে, তারই ঝাঁঝ ফের টের পাওয়া গেল সোমবার বাদকুল্লায় মহম্মদ সেলিমের কথায়। 

একই সঙ্গে তৃণমূল ও বিজেপিকে নিশানা করলেন রাজ্য সিপিএমের অন্যতম শীর্ষ নেতা তথা পলিটবুরো সদস্য সেলিম। বাবুলাল বিশ্বাস খুন নিয়ে সরব তো হলেনই, পাশাপাশি অন্য নানা বিষয় নিয়েও সরব হলেন। 

এ দিন বাবুলালের বাড়িতে গিয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে সেলিম দাবি করেন, ‘‘ভাইপো যাতে ধরা না পড়ে,  আবার যাতে এফআইআর না হয়, সে জন্য এনআরসি (জাতীয় নাগরিক পঞ্জি) দেখিয়ে মুখ্যমন্ত্রী দিল্লিতে সেটিং করতে যাচ্ছেন।’’ তাঁর অভিযোগ, ‘‘এনআরসি দাবি করে আরএসএস-বিজেপি যখন বলে, চার কোটি অনুপ্রবেশকারী ঢুকেছে, দিদিমণিও বলেছিলেন, এই রাজ্যেও দুই কোটি অনুপ্রবেশকারী আছে। তাদের বার করতে হবে।’’

বাংলাদেশ লাগোয়া জেলায় এসে সেলিম প্রত্যাশিত ভাবেই বারবার টেনে এনেছেন নাগরিক পঞ্জি বলবৎ করার প্রসঙ্গ। তাঁর বক্তব্য, ‘‘অসমে চল্লিশ লক্ষ মানুষ যখন তালিকার বাইরে ছিল, অমিত শাহ বলেছিলেন, এরা উইপোকা, মারতে হবে। আবার আপিল করার পর এখন দেখা যাচ্ছে, ১৯ লক্ষ তালিকার মধ্যে। বাকিদের কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত।’’ বিজেপির রাজ্য সভাপতির নাম করে সেলিমের কটাক্ষ, ‘‘দিলীপ ঘোষ, যাঁর নিজের সার্টিফিকেটের ঠিক নেই, তিনি আমাদের সার্টিফিকেট চাইছেন!’’ 

পরে ধানহাটের জনসভায় সেলিম দাবি করেন, ‘‘যত দিন বামেরা রাজ্যে ক্ষমতায় ছিল কোনও দিলীপ ঘোষের হিম্মত ছিল না এসে জন্ম সার্টিফিকেটের কথা জিজ্ঞাসা করে।’’ 

তাঁর হুঁশিয়ারি, ‘‘এক জনকেও বাদ দেওয়া যাবে না। নিজের দেশে থাকব, এটা আমাদের অধিকার। বেকার ছেলেমেয়েরা যাতে কাজ না চায় তাই মোদী-মমতা মিলে ভয়ের বাতাবরণ তৈরি করছে।’’