মিডডে মিলের ঘন্টা পড়েছে। পড়ুয়ারা হাত ধুয়ে খাওয়ার জন্য ক্লাস ঘরে ঢুকেছে। সবে থালায় মিডডে মিলের ভাত পড়তে শুরু করেছে। এমন সময় বিকট আওয়াজ। 

শিক্ষকদের আর বুঝতে অসুবিধা হয়নি, পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া রাজ্য সড়কে কোনও গাড়ি দূর্ঘটনায় পড়েছে। দ্রুত অফিস ঘর থেকে বেরোতেই শিক্ষকদের চক্ষুচড়ক গাছ। দেখেন, স্কুলের পাশেই রাস্তা। সেখানে, একটি লরি থেকে এক জোড়া চাকা খুলে স্কুলের মিডডেমিল রান্নাঘরের দেওয়ালে ধাক্কা মেরেছে। 

মঙ্গলবার দুপুরের মুর্শিদাবাদ থানার চুনাখালি পাগলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঘটনা। ওই ঘটনায় পড়ুয়াদের কিছু না হলেও স্কুলের এক প্রতিবেশির হাতে সামান্য চোট লেগেছে।

ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্যামলকুমার রায় বলছেন, “স্কুল চত্বরে থাকা ট্যাপে হাত ধুয়ে পড়ুয়ারা খেতে ঢুকেছে এমন সময় লরির অ্যাক্সেল ভেঙে এক জোড়া চাকা আমাদের স্কুলে ঢুকে পড়ে। আমাদের পড়ুয়ারা অল্পের জন্য দূর্ঘটনার হাত  থেকে রক্ষা পেয়েছে।’’

চুনাখালি পাগলা বাবা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশ দিয়ে বয়ে গিয়েছে বহরমপুর-জঙ্গিপুর ভায়া লালগোলা রাজ্য সড়ক। ওই রাস্তারটির ঠিক তার ডান পাশেই রয়েছে স্কুল ভবন। তবে এখনও স্কুলের পাঁচিল নেই। এ দিন বহরমপুর থেকে একটি সিমেন্ট ভর্তি লরি লালবাগের দিকে যাচ্ছিল। দুপুর দেড়টা নাগাদ স্কুলের সামনে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। ফলে বাঁ দিকের এক জোড়া চাকা খুলে ডান দিকে থাকা স্কুলের দিকে গড়িয়ে যায়। 

স্কুলের দিকে একটি রাস্তা ঢালু থাকায় ওই চাকা দু’টি সেই ঢালু রাস্তা দিয়ে গড়িয়ে স্কুলের ভেতরে চলে আসে। সেই দরজার পাশেই দাঁড়িয়েছিলেন প্রতিবেশি সুবীর সাহা। তাঁর সামান্য চোট লেগেছে।  অন্য দিকে ঘটনাস্থলে লরিটি দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকায় বহরমপুর-লালগোলা রাজ্য সড়কে যানজট দেখা দেয়।