• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

লক্ষ্য এখন ফালাকাটা, বাড়ি বাড়ি ঘুরতে নির্দেশ বিজেপির

BJP to initiate door to door campaign
প্রতীকী চিত্র

রাজ্যে তিনটি উপনির্বাচনের সবক’টিতেই দলের হার হয়েছে। একই ভরাডুবি প্রতিবেশী ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা নির্বাচনেও। এই অবস্থায় আর দেরি না করে এখন থেকেই ফালাকাটার উপনির্বাচন নিয়ে ময়দানে নামতে দলের আলিপুরদুয়ার জেলার নেতাদের নির্দেশ দিলেন বিজেপি রাজ্য শীর্ষ নেতৃত্ব। 

বিজেপি সূত্রের খবর, জানুয়ারি মাসের শুরুতেই ফালাকাটায় দলের এক কেন্দ্রীয় নেতার উপস্থিতিতে এই নির্বাচনের রণকৌশল ঠিক হবে। তার আগে এখন থেকেই মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসংযোগ বাড়াতে ফালাকাটার ও আলিপুরদুয়ারের নেতাদের নির্দেশ দিয়েছেন বিজেপির রাজ্য নেতারা। তৃণমূল বিধায়ক অনিল অধিকারীর মৃত্যুর জেরে ফালাকাটায় উপনির্বাচন  নতুন বছরের প্রথম দিকে যে কোনও সময় হতে পারে। ২০১১ সালে পালাবদলের পর থেকে ফালাকাটা কার্যত তৃণমূলের গড় হয়ে উঠেছিল। ওই বছর বিধানসভা নির্বাচনের পাশাপাশি ২০১৬ সালের নির্বাচনেও ফালাকাটা আসনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন তৃণমূল প্রার্থী অনিল। কিন্তু গত লোকসভা নির্বাচনে নিজেদের এই গড়েই বিজেপির থেকে অনেকটা পিছিয়ে থাকতে হয় রাজ্যের শাসক দলকে।

লোকসভা নির্বাচনের সেই ফলের কথা মাথায় রেখে অনিলের মৃত্যুর কিছুদিন পর থেকেই ফালাকাটায় উপনির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করে দেন তৃণমূলের আলিপুরদুয়ারের নেতারা। ইতিমধ্যেই মৌজা ধরে ধরে কর্মী সভার পাশাপাশি মিছিলও করছেন তাঁরা। সেইসঙ্গে এনআরসি নিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে জোর প্রচারও চালাচ্ছেন তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। অন্যদিকে গেরুয়া শিবির শুধু প্রার্থী হিসাবে চারজনের নামের একটি তালিকা রাজ্যে পাঠিয়ে দিয়ে বসে রয়েছে বলে খোদ বিজেপি সূত্রের খবর।

কিন্তু সাম্প্রতিক উপনির্বাচনে রাজ্যে তিনটি আসনের প্রত্যেকটি ও ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা নির্বাচনে দলের পরাজয়ের পর ফালাকাটা নির্বাচন নিয়ে এখন থেকেই প্রস্তুতিতে নামতে চাইছেন বিজেপির রাজ্য নেতারা। বিজেপি সূত্রের খবর, মঙ্গলবার শিলিগুড়িতে নতুন নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে মিছিলের পর দলের জেলা নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন বিজেপির রাজ্য শীর্ষ নেতৃত্ব। সেখানেই জেলা নেতাদের অবিলম্বে ফালাকাটায় জনসংযোগে ঝাঁপিয়ে পড়তে বলা হয়। বিজেপির জেলা সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা বলেন, ‘‘জানুয়ারি মাসের শুরুতেই দলের এক কেন্দ্রীয় নেতা ফালাকাটাতে আসবেন। তাঁর সঙ্গে বৈঠক করেই ফালাকাটা উপনির্বাচনে দলের রণকৌশল কী হবে তা ঠিক করা হবে। তার আগে নেতা-কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসংযোগের কাজ করবেন।’’

তবে তৃণমূলের জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী বলেন, ‘‘গোটা দেশের সঙ্গে এ রাজ্যের মানুষও বিজেপিকে প্রত্যাখ্যান করতে শুরু করেছেন। একের পর এক রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন ও রাজ্যের তিনটি উপ নির্বাচনের ফলই তা প্রমাণ করে। ফলে বিজেপি নেতারা যতই প্রস্তুতি নিন না কেন, উপ নির্বাচনে ফালাকাটার মানুষো তাদের যোগ্য জবাব দেবেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন