• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

প্রতিমাই শুকোয়নি, চক্ষুদান!

Rain in Uttar Dinazpur
দাপাদাপি: বৃষ্টি পড়তেই রাস্তায় খুদেরা। রায়গঞ্জে। নিজস্ব চিত্র

আজ, শনিবার রীতি অনুযায়ী মহালয়ার অমাবস্যা তিথিতে দুর্গা প্রতিমার চক্ষুদান করেন মৃৎশিল্পীরা। কিন্তু পাঁচ দিন ধরে উত্তর দিনাজপুর জেলাজুড়েই বৃষ্টি চলছে। এই পরিস্থিতিতে এখনও বিভিন্ন কুমোরটুলির বেশির ভাগ প্রতিমা শুকোয়নি বলে মৃৎশিল্পীদের দাবি। তাই আজ, চক্ষুদান তো দূরের কথা, নির্দিষ্ট সময়ে পুজো উদ্যোক্তাদের প্রতিমা দেওয়া সম্ভব হবে কিনা, তাই নিয়েই দুশ্চিন্তায় তাঁরা। বৃষ্টিতে এ দিনও পুজোর বাজার জমেনি বলেই ব্যবসায়ীদের দাবি। একই কারণে পুজোমণ্ডপ তৈরির কাজও ব্যাহত হয়েছে বলে উদ্যোক্তাদের বক্তব্য।

মোহনবাটী হাইস্কুলের আবহওয়া বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত ভূগোলের শিক্ষক বিশ্বজিৎ রায়ের বক্তব্য, ন’টি ব্লকে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় সোমবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত ১৫০ মিলিমিটারেরও বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। আগামী দু’একদিন হাল্কা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

সুভাষগঞ্জ ও কাঞ্চনপল্লি এলাকার দুই মৃৎশিল্পী সুভাষ পাল ও ভানু পালের বক্তব্য, ‘‘এ রকম আবহাওয়া থাকলে পঞ্চমীর মধ্যে প্রতিমা শুকিয়ে রং করা সম্ভব হবে কিনা, তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছি।’’ নিউমার্কেটের পোশাক ব্যবসায়ী সুকুমার সাহা ও রঞ্জন ঘোষের দাবি, আর্থিক মন্দা ও দফায় দফায় বৃষ্টিতে ক্রেতাদের ভিড় নেই। লক্ষ লক্ষ টাকার পোশাক মজুত করে জেলাজুড়ে পোশাক ব্যবসায়ীরা লোকসানের মুখে পড়েছেন।

সুদর্শনপুর সর্বজনীন দুর্গাপুজো কমিটির অন্যতম কর্তা তথা স্থানীয় কাউন্সিলর নয়ন দাসের জানান, বৃষ্টির জেরে মণ্ডপের বাইরে কাগজ, থার্মোকল, জড়ি ও বিভিন্ন হস্তশিল্পের কাজ ব্যাহত হচ্ছে। গত কয়েক দিনে একাধিক নির্মীয়মাণ মণ্ডপ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন