গত বছর ১৪মে  পঞ্চায়েত ভোট করাতে গিয়ে অস্বাভাবিক ভাবে মারা যান ভোটকর্মী রাজকুমার রায়। সেই ঘটনার প্রথম বর্ষপূর্তিতে দু’দিন ব্যাপী ভোটার ও ভোটকর্মী অধিকার রক্ষা দিবসের সূচনা হল বুধবার। 

এ দিন সকালে রায়গঞ্জের ঘড়িমোড় এলাকায় ‘রাজকুমার রায় হত্যার বিচার চাই মঞ্চে’র তরফে রাজকুমারকে শ্রদ্ধা জানিয়ে ভোটার ও ভোটকর্মী অধিকার রক্ষা দিবসের সূচনা করা হয়। মঞ্চের সদস্যেরা ছাড়াও প্রয়াত রাজকুমারের স্ত্রী অর্পিতা রাজকুমারের প্রতিকৃতিতে ফুল-মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। সেখানে শহরের বিভিন্ন হাইস্কুলের শিক্ষক ও সরকারি কর্মীরা গান ও আবৃত্তির মাধ্যমে রাজকুমারকে শ্রদ্ধা জানান। রাজকুমারের অস্বাভাবিক মৃত্যুর রহস্যের কিনারা, তিনি খুন হয়ে থাকলে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার ও ভোটকর্মীদের নিরাপত্তার দাবিতে এ দিন বিকেলে মঞ্চের সদস্যরা ঘড়িমোড় ও বিবেকানন্দ মোড় এলাকায় দু’টি পথসভার আয়োজন করেন। মঞ্চের তরফে জানানো হয়েছে, আজ, বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে মঞ্চের উদ্যোগ রায়গঞ্জের ছন্দম মঞ্চে রাজকুমার রায় স্মারক বক্তৃতার আয়োজন করা হবে। ‘আমাদের দেশে নির্বাচন গণতন্ত্রের উৎসব, না প্রহসন’ শীর্ষক ওই স্মারক বক্তৃতায় বক্তব্য রাখবেন কলকাতার সেন্টার ফর স্টাডিজ ইন সোশ্যাল সায়েন্সের অধ্যাপক মইদুল ইসলাম ও বিশিষ্ট সমাজকর্মী সুমনকল্যাণ মৌলিক।  

মঞ্চের যুগ্ম আহ্বায়ক তথা রায়গঞ্জের করোনেশন হাইস্কুলের শিক্ষক প্রিয়রঞ্জন পালের দাবি, ‘‘রাজকুমারবাবুকে খুন করা হয়েছে বলে তাঁর পরিবারের তরফে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তাই জেলার শুভবুদ্ধিসম্পন্ন ও গণতন্ত্রপ্রেমী বাসিন্দারা মঞ্চের  তরফে তাঁর পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে রাজকুমারবাবুর অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে আন্দোলনে সামিল হয়েছেন।’’ সিপিএমের জেলা সম্পাদক অপূর্ব পালের দাবি, ‘‘মঞ্চের আন্দোলনকে দল সমর্থন করেছে। কিন্তু সিপিএমের সঙ্গে ওই আন্দোলনের কোনও সম্পর্ক নেই।’’ এদিকে, রাজকুমারের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ এবং তাঁর মৃত্যুরহস্যের উন্মোচনের দাবি জানাতে ভোটকর্মী ঐক্যমঞ্চ নামে একটি সংগঠন নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে।  

রাজকুমারের অস্বাভাবিক মৃত্যুকে কেন্দ্র করে মঞ্চের উদ্যোগে অনুষ্ঠান নিয়ে কটাক্ষ করেছে তৃণমূল। উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি অমল আচার্যের বক্তব্য, ‘‘রাজকুমারবাবু আত্মহত্যা করেছেন, নাকি তাঁকে খুন করা হয়েছে, সেই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত ধোঁয়াশা কাটেনি। তাঁর মৃত্যুরহস্যের কিনারা করতে সিআইডি তদন্ত করছে। সেই তদন্ত চলাকালীন সিপিএম মঞ্চের নাম করে ঘটনাটিকে খুন বলে প্রচার করে পরোক্ষে রাজনীতি করছে।’’

গত বছরের ১৪মে পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ভোট চলাকালীন ইটাহার ব্লকের সোনারপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বুথ থেকে নিখোঁজ হয়ে যান প্রিসাইডিং অফিসার রাজকুমার। তিনি করণদিঘির রহটপুর হাইমাদ্রাসার শিক্ষক ছিলেন। পরদিন রাতে রায়গঞ্জের সোনাডাঙ্গি এলাকার রেললাইন থেকে তাঁর ছিন্নভিন্ন মৃতদেহ উদ্ধার করে রেলপুলিশ।