রামপুরহাট পুরসভার উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ‘কমিনিউটি মেডিসিন’-এর প্রথমপাঠ নিলেন রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজের প্রথম বর্ষের পড়ুয়ারা।

মঙ্গলবার দুপুরে ৫০ জন পড়ুয়াকে সঙ্গে নিয়ে মেডিক্যাল কলেজের ‘কমিউনিটি মেডিসিন’ বিভাগের অধ্যাপক সুমন চট্টোপাধ্যায় ও দেবাশিস সিংহ রামপুরহাটের গাঁধীপার্ক সংলগ্ন পুরসভার উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যান। মেডিক্যাল কলেজ সূত্রে খবর, স্বাস্থ্যকেন্দ্রে কী ধরণের পরিষেবা মেলে তা নিয়ে পড়ুয়াদের জানান পুরসভার ওই উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চিকিৎসক নরসিংহ দাস ভট্টর ও দয়ানাথ দফাদার। উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের পরিকাঠামোর বিষয়েও জানানো হয়। জানানো হয় ওই কেন্দ্রের বহির্বিভাগ, রোগ নির্ণয় পরীক্ষাগার, ওষুধ বিতরণ কেন্দ্র সম্পর্কেও। উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কর্মীরা কী কাজ করেন তা-ও
শেখেন পড়ুয়ারা।

অধ্যাপক সুমন চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘স্বাস্থ্য পরিষেবার প্রাথমিক পর্যায়ের বিষয়গুলি পড়ুয়াদের জানাতে শহর ও গ্রামীণ অঞ্চলের স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এ দিন শহরাঞ্চলে
পুরসভার স্বাস্থ্য পরিষেবার বিষয়ে তাঁদের পাঠ দেওয়া হয়। আগামী দিনে গ্রামীণ এলাকায় স্বাস্থ্য পরিষেবা দেখাতে তাঁদের কয়েকটি কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হবে।’’

রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজের মেডিক্যাল সুপার ও ভাইস প্রিন্সিপ্যাল সুজয় মিস্ত্রি জানান, পড়ুয়াদের জন্য এক মাসের ‘ফাউন্ডেসন কোর্স’ শুরু হয়েছে। ওই পাঠ্যক্রমে স্বাস্থ্য পরিষেবার বিভিন্ন দিকের কথা তাঁদের জানানো হচ্ছে। শেখানো হচ্ছে রোগীদের সঙ্গে কেমন ব্যবহার করতে হবে, সে কথাও।

এ দিন রামপুরহাট পুরসভার উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে মেডিক্যাল কলেজের পড়ুয়াদের স্বাগত জানান মন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়। উপ-পুরপ্রধান সুকান্ত সরকার সহ পুর-স্বাস্থ্যকর্মীরাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।