চোখ টানছে ভুল বানানের দেওয়াল 
অতি সাধারণ বানানও ভুল লেখা হয়েছে অনেক দেওয়ালে। বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রে এ বার তৃণমূল প্রার্থী অসিত মাল। দেওয়াল প্রচার লায়েকবাজারের দুটি দেওয়ালে তাঁর নামের বানান লেখা হয়েছে ‘অসীত’ মাল।
poster

প্রার্থীর নামের বানানেই ভুল। ছবি: দেবস্মিতা চট্টোপাধ্যায়

এও এক দৃশ্যদূষণ।

হাতে গোনা দিন। তার পরেই ভোট। কিন্তু, এখনও চোখ টানছে দেওয়াল লেখায় প্রচলিত শব্দের ভুল বানান। দেওয়াল ছড়া তো বটেই, প্রার্থীর বানানেও ভুল লেখা হয়েছে।

অতি সাধারণ বানানও ভুল লেখা হয়েছে অনেক দেওয়ালে। বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রে এ বার তৃণমূল প্রার্থী অসিত মাল। দেওয়াল প্রচার লায়েকবাজারের দুটি দেওয়ালে তাঁর নামের বানান লেখা হয়েছে ‘অসীত’ মাল। প্রচারে ব্যস্ত থাকায় তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে লায়েকবাজারের কিছু তৃণমূল কর্মীর দাবি, শিল্পীকে দিয়ে দেওয়াল লিখনের কাজ করানো হয়েছে। তাড়াহুড়োয় ভুলবশতই এমন বানান লেখা হয়েছে।

বোলপুর ১০ নম্বর ওয়ার্ডের একটি দেওয়ালে লেখা, ‘পাঁকেতে ফোঁটা ফুল/ তুলতে গেলে করবে ভূল’। এখানেও ‘ফোঁটা’ এবং ‘ভূল’ দুটি বানান ভুল। পয়সা ‘উসুল’ না লিখে লেখা হয়েছে পয়সা ‘অসুল’। কন্যা হয়েছে ‘কণ্যা’। কোথাও আবার হঠাও হয়েছে ‘হটাও’, কুপোকাত বানান ‘কুপকাত’। প্রার্থী হয়েছে ‘প্রাথী’। কোথাও পদ্মফুল, কোথাও আবার কমলফুল। অক্ষরের মাত্রা দেওয়ার ক্ষেত্রেও যথেষ্ট ভুল রয়েছে অধিকাংশ দেওয়ালে। 

নির্বাচনে দেওয়াল দখলের লড়াই ঢের আগে শুরু হয়ে যায়। নাম প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গেই শুরু হয় দেওয়াল লিখন। তা নিয়ে লড়াইয়ে মাঝে মধ্যে ঝামেলার খবরও উঠে আসে। এ ছাড়া অন্যের দেওয়াল লিখনে গোবর লাগানো, কালি মাখানোর অভিযোগ তো রয়েইছে। এ বারের লোকসভা নির্বাচনেও বিভিন্ন ব্যাঙ্গাত্মক কবিতা, কার্টুনে ভরেছে বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রের দেওয়ালগুলি।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

দেওয়াল শিল্পীদের একাংশের মতে, ‘‘অসতর্ক থাকার কারণেও অনেক ক্ষেত্রে ভুল হয়ে যায়। এর সঙ্গে দেওয়াল লেখার চাপ তো আছেই। কেননা সময় সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত একাধিক দেওয়াল লেখার কাজ করতে হয়েছে।’’ পথচলতি মানুষের কথায়, ‘‘কিছু দেওয়ালে অতি সাধারণ, প্রচলিত বানানগুলোও ভুল লেখা হয়েছে। দেখেও খারাপ লাগছে।’’

বোলপুরের প্রবীণ নাগরিকদের অনেকেই জানালেন, একটা সময় দেওয়াল লিখন প্রকৃত অর্থে শিল্পকর্ম ছিল। নির্বাচনের আগে দেওয়াল লিখন দেখে মজা লাগত। বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া, ফ্লেক্স, ব্যানার এ সব চলে আসায় দেওয়াল লিখনে সে ভাবে জোর দেয় না কোনও দলই। যেহেতু দেওয়াল দখল করে রাখা থাকে, সেহেতু কিছু একটা লিখে ছেড়ে দিলেই হল। তার পরে তো একই দেওয়ালে রেষারেষি করে দুটি কিংবা তিনটি রাজনৈতিক দলের প্রচার আছেই।

লোকসভা ভোটে অবশ্য দেওয়াল দখল কিংবা লিখনের লড়াইয়ে এগিয়ে তৃণমূল। বিজেপি এবং সিপিএমের দেওয়াল লিখনও রয়েছে বেশ কিছু জায়গায়। তুলনায় অনেক কম কংগ্রেসের দেওয়াল লিখন।