সাইকেল চুরির ঘটনা বাড়ছে বলে অভিযোগ উঠছিল বাঁকুড়ার মাচানতলা এলাকায়। সোমবার সাইকেল চোর সন্দেহে এক যুবককে বেঁধে গণধোলাই দেওয়ার অভিযোগ উঠল সেখানেই। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত গিয়ে যুবককে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। পুলিশ জানিয়েছে, ওই যুবকের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করানো হয়েছে। তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে মাচানতলার মিনি মার্কেটে। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের একাংশের অভিযোগ, সম্প্রতি ওই এলাকায় সাইকেল চুরি বেড়ে গিয়েছে। তাঁদের দাবি, এ দিন অভিযুক্ত যুবক একটি দোকানের কর্মীর সাইকেল নিয়ে চম্পট দিচ্ছিল। সেই সময়ে স্থানীয় লোকজন তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন। যুবকের সঙ্গে প্রথমে বচসা শুরু হয় বাজারের লোকজনের। তার পরে একটি বিদ্যুতের খুঁটিতে তাকে বেঁধে ফেলে কিছু লোক। অভিযোগ, যুবককে চড়-থাপ্পড় মারা হয়। মিনিট দশেক এমন চলার পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।

গোটা ঘটনায় প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে। ঘটনা হল, কখনও ছেলেধরা সন্দেহে, আবার কখনও ‘প্রেম করায়’ গণধোলাইয়ের ঘটনা বাঁকুড়ায় ঘটতে দেখা গিয়েছে। চুরির অভিযোগে গণধোলাইও নতুন নয় বাঁকুড়া শহরে। 

এ দিনের ঘটনাটি ঘটেছে জেলা ডিআইবি অফিস থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে। স্থানীয় সূত্রে খবর, ওই যুবককে বেঁধে পেটানোর অন্তত আধ ঘণ্টা আগে থেকেই ঝামেলার সূত্রপাত। পুলিশ কেন আগেই খবর পেয়ে ওই যুবককে আটক করে নিয়ে যায়নি, প্রশ্ন উঠছে তা নিয়ে। 

গণধোলাইয়ের জেরে মৃত্যুর ঘটনাও ঘটতে দেখা যাচ্ছে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায়। তার পরেও আইন নিজেদের হাতে তুলে নেওয়ার প্রবণতা যে কমছে না এই ঘটনা তারই প্রমাণ দিল বলেও দাবি বাঁকুড়া শহরের বাসিন্দাদের একাংশ। জেলা পুলিশের এক কর্তা বলেন, “ওই যুবকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হয়েছে। শরীরে তেমন চোট পাওয়া যায়নি। খবর পেয়েই পুলিশ দ্রুত ব্যবস্থা নিয়েছে।” সাইকেল চুরি নিয়ে নির্দিষ্ট অভিযোগ দায়ের হলে তদন্ত হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।