রাজনীতির ময়দানে যাঁরা যুযুধান। কিন্তু, রাখির দোকানে তাঁদেরই সহাবস্থান। প্রতিদ্বন্দ্বিতা আছে ঠিকই। তবে, তা রাজনীতির নয়। বরং বিক্রির নিরিখে কে কাকে টেক্কা দিচ্ছেন, নজর রাখছেন দোকানদারেরা।

দোকানে পাশাপাশি রাখা দু’ধরনের রাখি। কোনও রাখিতে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ছবি এবং বিজেপি’র দলীয় প্রতীক। অন্য রাখিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি বা তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতীক। দুই ধরনের রাখিই দেদার বিকোচ্ছে বোলপুরে। রাখির বাজারেও জমে উঠেছে মোদী-দিদি লড়াই। বাজার ছেয়েছে এই দুই প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রীর মুখের ছবি দেওয়া রাখিতে। দুই রাখির দাম
একই রেখেছেন বিক্রেতারা। ১০ টাকা দিলেই পাওয়া যাচ্ছে মোদী-রাখি বা দিদি-রাখি। যাঁর যেমন পছন্দ, নিয়ে
নিলেই হল।

কাল, বৃহস্পতিবার রাখি বন্ধন উৎসব। গোটা দেশের আট থেকে আশি সকলেই মেতে উঠবেন রাখি বন্ধন উৎসবে। বাদ যায়নি বোলপুর শহরও। ইতিমধ্যেই শহরের বাজারগুলি রাখিতে ছেয়ে গিয়েছে। প্রতি বছরের মতো এ বারও বাজারের চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের রাখি প্রস্তুত করেছেন ব্যবসায়ীরা। ছোটদের আনন্দ দিতে জনপ্রিয় কার্টুন চরিত্র ছোটা ভিম, মোটু-পাতলু, বেন টেন থেকে পাবজি গেমের রাখিও এ বার বাজারে এসেছে।

তবে, মোদী ও ‘দিদি’র রাখি বাজারে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। মঙ্গলবার বোলপুর শহরের বাজার ঘুরে দেখা গেল কোথাও কোথাও মোদী-মমতার রাখি পাশাপাশি রেখে বিক্রি করা হচ্ছে। শহরের চৌরাস্তা লাগোয়া বাজারে, স্টেশন রোডে, জামবুনি রোডে, সুপার মার্কেট রোডে সর্বত্রই রাখির বাজারে কৌতূহল ওই রাখি নিয়ে— এমনই জানাচ্ছেন কয়েক জন বিক্রেতা।

বোলপুরের এক ব্যবসায়ী রাহুল ভকত বললেন, ‘‘কয়েক দিন আগেই বাজারে এসেছে মোদী-মমতার রাখি। অন্য ধরনের রাখির চাহিদা তো রয়েছেই, এই রাখিও ভালই বিক্রি হচ্ছে।’’ আর এক দোকানদার সন্তু সাউ বলেন, ‘‘এখনও পর্যন্ত যা বিক্রি হয়েছে, তাতে কিন্তু প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রী একে অন্যকে টক্কর দিচ্ছেন।’’

ক্রেতারাও তাঁদের পছন্দের নেতা বা নেত্রীর ছবিওয়ালা রাখি কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। একই ভাবে রাখিবন্ধনের মাধ্যমে রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীরাও তাঁদের দলের নেতা-নেত্রীর মুখের ছবি দিয়ে তৈরি রাখি কিনে নিয়ে যাচ্ছেন জনসংযোগ বাড়ানোর লক্ষ্যে। রাজনীতি পুরোপুরি অবশ্য মোছা যাচ্ছে না। বোলপুরের বাসিন্দা, বিজেপি-র জেলা সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষের কটাক্ষ, ‘‘রাখিবন্ধন হলো রক্ষা বন্ধন। তৃণমূলের হাত থেকে বাঁচতে আজ মানুষ বিজেপিকে বেছে নিয়েছে। বিজেপির দেখাদেখি তৃণমূলও রাখি বন্ধন উৎসব করছে।’’

যা জেনে তৃণমূলের জেলা সহ-সভাপতি অভিজিৎ সিংহ বলছেন, ‘‘পশ্চিমবাংলায় বিজেপি-র রাখির তুলনায় মানুষের কাছে তৃণমূলের রাখি অধিক পরিচিত। তাঁদের কাছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনেক কাছের।’’ প্রতি বছরের মতো এ বছরও তাঁরা ব্লকে ব্লকে রাখিবন্ধন উৎসব পালন করবেন বলে জানিয়েছেন অভিজিৎবাবু।