Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

বিনোদন

Fake Love: নেহা-আদিত্য, অনুপ-জসলিন... রিয়েলিটি শো-এ ‘প্রেম’ করে দর্শকদের বোকা বানিয়েছেন যাঁরা

নিজস্ব প্রতিবেদন
২০ জুলাই ২০২১ ১৩:৪৭
রিয়েলিটি শো কি আদৌ রিয়েল নাকি সবটাই সাজানো? এ নিয়ে তর্কা-বিতর্ক চলতেই থাকবে। তবে রিয়েলিটি শো-এর জনপ্রিয়তা এবং প্রচারের জন্য এর অনেক অংশই সাজিয়ে পরিবেশন করা হয়ে থাকে। বিশেষ করে দেখা গিয়েছে, বেশির ভাগ রিয়েলিটি শো-তে অন্তত দুই প্রতিযোগীর মধ্যে প্রেমের আবহ গড়ে ওঠে। আর শো শেষ হলেই সেই প্রেম উধাও হয়ে যায়।

এই শোগুলির কোনটা সত্যি আর কোনটা মিথ্যা তা যাচাই করা খুবই মুশকিল। পর্দায় তৈরি হওয়া এমনই কিছু সম্পর্ক নিয়ে এই প্রতিবেদন।
Advertisement
নেহা কক্কর এবং আদিত্য নারায়ণের প্রেম নিয়ে এক সময় বহু চর্চা হয়েছে। যার সূত্রপাত ঘটেছিল ‘ইন্ডিয়ান আইডল সিজন ১১’-এ। ওই মরশুম জুড়ে নেহা এবং আদিত্য একে অপরকে প্রেমে মশগুল হয়ে পড়েছিলেন। এমনকি ওই শো-এ তাঁদের মা-বাবাও আসেন এবং নেহা-আদিত্যকে আশীর্বাদও করেন।

শুধু এখানে থেমে গেলেও একরকম হত। ওই শো চলাকালীনই তাঁদের বিয়ের দিন ক্ষণও স্থির হয়ে যায়। এমনকি শো-তে বিয়ের আগের কিছু রীতিও সকলে মিলে পালন করেন। তাঁদের দু’জনের সম্পর্ক নিয়ে অনুরাগীদের মধ্যেও দারুণ উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। কিন্তু পরে জানা যায়, সবই মিথ্যা। শ্বেতা আগরওয়ালকে বিয়ে করেন আদিত্য। ওই বছরই পঞ্জাবি গায়ক রোহনপ্রীত সিংহকে বিয়ে করেন নেহা।
Advertisement
‘ইন্ডিয়ান আইডল ১২’-এর দুই প্রতিযোগী পবনদ্বীপ রাদন এবং অরুনীতা কাঞ্জিলালের মধ্যে আবেগের বিনিময় নিয়ে বিস্তর চর্চা হয়েছিল এক সময়। একসঙ্গে রোম্যান্টিক গান করে এবং নিজেদের দুষ্টুমিষ্টি কথা দিয়ে দর্শকদের মাতিয়ে রেখেছিল এই জুটি। তাঁদের মধ্যে এই খুনসুটি যে নেহাতই মনগড়া ছিল তা পরবর্তীকালে স্বীকার করেছিলেন পবনদ্বীপ।

সম্পর্কের সমীকরণ বুঝে ওঠা দায়। এই তাঁরা গুরু-শিষ্যা তো এই প্রেমিক যুগল! রিয়ালিটি শো ‘বিগ বস ১২’-এই প্রথম ফাঁস হয় অনুপ জালোটা এবং জসলিন মাথারুর সম্পর্ক।

জানা গিয়েছিল, শো-এ যোগ দেওয়ার বছর তিনেক আগে থেকেই নাকি প্রেম তাঁদের। যদিও পরে তাঁরা জানিয়েছিলেন, শোয়ের জন্যই যাবতীয় প্রেম। সম্পর্কের বিষয়টি পুরোপুরি চিত্রনাট্য মেনে তৈরি হযেছিল। আদতে তাঁরা গুরু শিষ্যা। কিন্তু পর্দায় সেটা বোঝার উপায় ছিল না!

এন্টারটেনমেন্ট, এন্টারটেনমেন্ট অ্যান্ড এন্টারটেনমেন্ট। রাখি সবন্তের জীবনে কথাটা একেবারে সত্যি। বলিউডের ‘কন্ট্রোভার্সি কুইন’-এর ব্যক্তি জীবন হোক বা কেরিয়ার সবেতেই বিনোদনের মশলা ভরপুর। টাকার জন্য এই অভিনেত্রী বিয়ে পর্যন্ত করে ফেলেছিলেন।

‘রাখি কা স্বয়ম্বর’ রিয়েলিটি শো-তে টাকার জন্য ইন্দো-আমেরিকান ব্যবসায়ী ইলেশ পারজানওয়ালেকে বিয়ে পর্যন্ত করে নিয়েছিলেন রাখি! পরে রাখি বলেছিলেন, ‘‘সে সময় আমার একটা ফ্ল্যাট কেনার দরকার ছিল। তাই টাকার জন্যই ইলেশের সঙ্গে এনগেজমেন্ট করেছিলাম। কেন মিথ্যে বলব? বিচ্ছেদের জন্য তো কাউকে বিয়ে করব না। বরং এমন একজনকে বিয়ে করব যে আমার খেয়াল রাখবে এবং আমার যাবতীয় চাহিদা মেটাতে পারবে।’’

‘নাচ বলিয়ে ৯’-এ নিত্যামি শিরকের সঙ্গে নেচে দর্শকদের নজর কেড়েছিলেন শান্তনু মাহেশ্বরী। এই শো-এ নিত্যামিকে নিজের প্রেমিকা বলেও জাহির করেছিলেন শান্তনু। সেটা যে অন্তরের ভালবাসা ছিল না তা শো শেষেই বোঝা গিয়েছিল।

‘নাচ বলিয়ে ৭’-এ দীপেশ পটেলের সঙ্গে জুটি বেঁধেছিলেন সানা সইদ। তখন মঞ্চে তাঁদের রসায়ন দেখেও অনেকেই মনে করেছিলেন তাঁরা প্রেমিক-প্রেমিকা। পরে জানা যায়, সবটাই শো-এর টিআরপি-র জন্য।

‘নাচ বলিয়ে’-র প্রতিটি সিজন-এ এ রকম চমক থাকে দর্শকদের জন্য। সিজন ৩-তেও কর্ণ পটেল এবং অমিতা চন্ডেকরের রসায়ন একই ভাবে দর্শকদের ভাবতে বাধ্য করেছিল তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে।

শো শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তাঁদের সম্পর্কে ইতি ঘটে এবং কর্ণ স্বীকার করে নেন, তাঁদের মধ্যে তেমন কোনও সম্পর্ক নেই। সবই শো-এর চাহিদা অনুযায়ী করতে হয়েছিল।

‘বিগ বস ৪’-এর দুই প্রতিযোগীর মধ্যে আবার নাটক চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে যায়। এই সিজন-এর প্রতিযোগী ছিলেন সারা খান। বিগ বস-এর ঘরে ঢোকার আগে পর্যন্ত সারার সঙ্গে আলি মার্চেন্টের সম্পর্ক নিয়ে প্রচার শুরু হয়। কিন্তু সবই বদলে যায় বিগ বস-এর ঘরে ঢোকার পর।

সারা আর এক প্রতিযোগী অস্মিত পটেলের ঘনিষ্ঠ হতে শুরু করেন। সারা আর অস্মিতের সম্পর্ক যখন মোড় নিতে শুরু করে সে সময় নাটকীয় ভাবে বিগ বস ঘরে প্রবেশ হয় আলির। বিগ বস হাউসেই আলি এবং সারার বিয়েও হয়। কিন্তু এ সবই যে শো-এর দর্শক বাড়ানোর কৌশল মাত্র তা জানা যায় শো শেষ হওয়ার পর। শো শেষ তো তাঁদের সম্পর্কও শেষ হয়ে যায়।