×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

ভোট চলাকালীন মাওবাদীদের সঙ্গে গুলির লড়াই ছত্তীসগঢ়ে, আহত ২ জওয়ান

সংবাদ সংস্থা
রায়পুর ১২ নভেম্বর ২০১৮ ০২:০৬
ভোটগ্রহণ চলছে ছত্তীসগঢ়ে। ছবি সৌজন্য টুইটার।

ভোটগ্রহণ চলছে ছত্তীসগঢ়ে। ছবি সৌজন্য টুইটার।

মাওবাদী হিংসার আবহে ভোট শুরু হল ছত্তীসগঢ়ে। দক্ষিণ ছত্তীসগঢ়ের ১৮টি বিধানসভা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে। মাওবাদী উপদ্রুত এলাকার এই ৮ জেলায় অবাধ, শান্তিপূর্ণ এবং রক্তপাতহীন ভোট করানো নির্বাচন কমিশন তথা প্রশাসনের সামনে খুব বড় চ্যালেঞ্জ।

যদিও এ দিন দন্তেওয়াড়ায় ভোটগ্রহণের শুরুতেই আইইডি বিস্ফোরণ ঘটায় মাওবাদীরা। ভোটগ্রহণ কেন্দ্র থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে এই বিস্ফোরণে অবশ্য কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। সুকমায় ভোটকেন্দ্রের কাছে ৩টি আইইডি উদ্ধার হয়। এ দিন একটু বেলা গড়াতেই বিজাপুরে মাওবাদীরা হামলা চালায়। পাল্টা জবাব দেয় জওয়ানরাও। দু’পক্ষের মধ্যে গুলির লড়াই চলছে। এই হামলায় আহত হয়েছেন দুই কোবরা জওয়ান। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে বিশাল বাহিনী। এ দিন দুপুর ১টা পর্যন্ত ভোট পড়ে ২৫ শতাংশ।

রবিবার ভোটের আগের দিনই বস্তার ডিভিশনের পর পর ৬টি এলাকায় বিস্ফোরণ ঘটিয়ে মাওবাদীরা জানান দিয়েছে, শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন হতে না দিতে তারা বদ্ধপরিকর। তবে কঠোর নিরাপত্তা বলয়ে গোটা এলাকাকে মুড়ে ফেলে নির্বিঘ্নে ভোট সারতে তৎপর প্রশাসনও।মাওবাদীদের ঠেকাতে ৬৫০ কোম্পানি আধাসেনা নেমেছে। সঙ্গে অন্যান্য রাজ্য থেকে আসা ৬৫ হাজার পুলিশ। ১৮টি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোটের পাহারায় ১ লক্ষাধিক জওয়ান! ৫০টি ড্রোনের মাধ্যমে নজরদারি চালানো হচ্ছে। এ ছাড়াও টহলদারির জন্য রয়েছে সাড়ে পাঁচ হাজার গাড়ি।

Advertisement

বস্তার, কাঙ্কের, সুকমা, দন্তেওয়াড়া, বিজাপুর, নারায়ণপুর, কোণ্ডাগাঁও এবং রাজনন্দগাঁও— ৮টি জেলার মাত্র ১৮টি আসনে ভোট চলছে আজ। তার মধ্যে ১৩টি আসনেই মাওবাদীদের দাপট



গত ১৫ বছর ধরে যিনি ছত্তীসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী, সেই রমণ সিংহ লড়ছেন রাজনন্দগাঁও থেকে। তাঁর বিরুদ্ধে কংগ্রেসের প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর ভাইঝি তথা প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ করুণা শুক্লা। ফলে আজকের ভোটে রাজনন্দগাঁও আসনের ভোটগ্রহণের দিকে নজর থাকছে সব পক্ষের।



গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

আরও পড়ুন: দু’দলেরই ঢাল বাজপেয়ী, নিজের কেন্দ্রে কঠিন লড়াই রমনের

আরও পড়ুন: মর্যাদা মেলেনি, অন্তাগড়ের বাঙালিরা জবাব দিতে প্রস্তুত​

আরও পড়ুন: রাজনীতি আর বুলেট, দুই লড়াই দেখার প্রতীক্ষায় সুকমা

মাওবাদীরা ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছে। রবিবার গোটা বস্তার ডিভিশনে তাণ্ডব চালিয়ে এলাকায় ত্রাসের আবহ তৈরি করতে চেয়েছে মাওবাদীরা। তবে নিরাপত্তা বাহিনীর ভূমিকাও রবিবার ছিল অত্যন্ত আক্রমণাত্মক। মাওবাদীদের ঘটানো আইইডি বিস্ফোরণে এক বিএসএফ জওয়ান শহিদ হয়েছে রবিবার।



কড়া নিরাপত্তায় ভোট ছত্তীসগঢ়ে। ছবি সৌজন্য: টুইটার।

কিন্তু যেখানে যেখানে মাওবাদীরা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে, সেখানেই আধাসামরিক বাহিনী পাল্টা পদক্ষেপ করেছে। দক্ষিণ ছত্তীসগঢ়ের বিভিন্ন অংশের জঙ্গলে রবিবার দিনভর বাহিনীর সঙ্গে মাওবাদীদের সংঘর্ষ চলেছে। সংঘর্ষে এক মাওবাদীর মৃত্যু হয়েছে এবং একজন গ্রেফতার হয়েছে বলে খবর। প্রচুর অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধারের খবরও মিলেছে। আজ ভোটের বুথে যেতে যাতে জনসাধারণ ভয় না পান, তা নিশ্চিত করতেই রবিবার থেকে বাহিনীর তৎপরতা প্রবল ভাবে বাড়ানো হয়েছে।

(ভারতের রাজনীতি, ভারতের অর্থনীতি- সব গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)

Advertisement