Advertisement
২০ জুন ২০২৪
India-Myanmar Border

ওপারেই সেনা-বিদ্রোহী লড়াই চলছে, মায়ানমার সীমান্তে ‘অবাধ যাতায়াত’ বন্ধের ঘোষণা শাহের

ভারত-মায়ানমার আন্তর্জাতিক সীমান্তের উভয় দিকে ১৬ কিলোমিটারের মধ্যে বসবাসকারীদের এপার ওপার হতে কোনও ভিসা লাগে না। দ্বিপাক্ষিক চুক্তি অনুসারেই ‘ফ্রি মুভমেন্ট রেজিম’-এর এই ব্যবস্থা।

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৪:৫৪
Share: Save:

সীমান্তের ওপারে মায়ানমার সেনা এবং বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলির লড়াই চলছে। এই পরিস্থিতিতে নিরাপত্তার স্বার্থে সীমান্তে দু’দেশের নাগরিকদের অবাধ যাতায়াতের চুক্তি প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিল নরেন্দ্র মোদী সরকার। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বৃহস্পতিবার এই ঘোষণা করেছেন।

এক্স হ্যান্ডলে শাহ লিখেছেন, ‘‘আমাদের সীমান্ত সুরক্ষিত করার লক্ষ্যে এটি প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীজি’র সংকল্প। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবং মায়ানমারের সীমান্তবর্তী ভারতের উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলির জনবিন্যাস সংক্রান্ত কাঠামো বজায় রাখতে ভারত ও মায়ানমারের মধ্যে ‘ফ্রি মুভমেন্ট রেজিম’ (এফআরএম) বাতিল করা হবে। যে হেতু বিদেশ মন্ত্রক বর্তমানে এটি বাতিল করার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে, তাই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক অবিলম্বে এফআরএম স্থগিত করার সুপারিশ করেছে।’’

ভারত-মায়ানমার আন্তর্জাতিক সীমান্তের উভয় দিকে ১৬ কিলোমিটারের মধ্যে বসবাসকারীদের এপার ওপার হতে কোনও ভিসা লাগে না। দুই দেশের সরকারের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুসারেই ‘ফ্রি মুভমেন্ট রেজিম’-এর সুবিধে দেওয়া হয়েছে৷ কিন্তু গত নভেম্বর থেকে মায়ানমারে গৃহযুদ্ধ পরিস্থিতির কারণে উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে শরণার্থীদের অনুপ্রবেশের ঢল নেমেছে। এই পরিস্থিতিতে সপ্তাহ দুয়েক আগে গুয়াহাটিতে অসম পুলিশের একটি কর্মসূচিতে শাহ বলেছিলেন, “বাংলাদেশ সীমান্তের মতোই মায়ানমার সীমান্তকে সুরক্ষিত করা হবে।” একই সঙ্গে তিনি বলেন, “অসমের সমস্ত বন্ধুকে জানাতে চাই, নরেন্দ্র মোদীর সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, মায়ানমার সীমান্ত ধরে কাঁটাতারের বেড়া দেওয়া হবে।”

শাহের ঘোষণার পরেই দ্রুতগতিতে মায়ানমার সীমান্তে বেড়া দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। উত্তর-পূর্বাঞ্চলের পাহাড়, জঙ্গলে ঘেরা ওই দুর্গম সীমান্তে কাজের বরাত পেয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ‘বর্ডার রোডস অর্গানাইজ়েশন’ (বিআরও)। প্রসঙ্গত, উত্তর-পূর্বাঞ্চলের চার রাজ্য— মণিপুর, নাগাল্যান্ড, মিজ়োরাম এবং অরুণাচল প্রদেশের সঙ্গে মায়ানমারের সীমান্ত রয়েছে। শাহের মন্ত্রকের নিয়ন্ত্রণাধীন অসম রাইফেলস এবং বিএসএফ বাহিনী ওই সীমান্তে নজরদারি করে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE