Advertisement
০৮ ডিসেম্বর ২০২২

বরাকে উদ্ধার ৭ শিশু শ্রমিক

হাইলাকান্দির কয়েকটি রেঁস্তোরা, গাড়ি সারাইয়ের দোকানে হানা দিয়ে ৭ শিশু শ্রমিককে উদ্ধার করল প্রশাসন। আজ ওই অভিযানে সামিল ছিল শ্রম বিভাগের টাস্ক ফোর্স, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘চাইল্ড-লাইন’ও।

নিজস্ব সংবাদদাতা
হাইলাকান্দি শেষ আপডেট: ২৮ জুলাই ২০১৫ ০২:৩৯
Share: Save:

হাইলাকান্দির কয়েকটি রেঁস্তোরা, গাড়ি সারাইয়ের দোকানে হানা দিয়ে ৭ শিশু শ্রমিককে উদ্ধার করল প্রশাসন। আজ ওই অভিযানে সামিল ছিল শ্রম বিভাগের টাস্ক ফোর্স, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘চাইল্ড-লাইন’ও।

Advertisement

হাইলাকান্দির সার্কেল অফিসার সরফরাজ হক, জেলা শ্রম আধিকারিক পি বি হাওয়ান এবং জেলা শ্রম পরিদর্শক আলিমউদ্দিনের নেতৃত্বে অভিযান চলে। উদ্ধার হওয়া শিশুদের জেলাশাসকের দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়। জেলা শ্রম আধিকারিক বলেন, ‘‘জেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে শিশু শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করানোর অভিযোগ মিলছিল। তার পরই অভিযানের ছক কষা হয়। ভবিষ্যতেও এ রকম অভিযান চলবে।

প্রশাসনিক সূত্রে জানা গিয়েছে, উদ্ধার শিশু শ্রমিকদের মধ্যে রয়েছে— হাইলাকান্দির চিড়া মিল এলাকার আবুল হাফিজ চৌধুরী, টেমপুর গ্রামের বিকলু শব্দকর, নারায়ণপুরের জাকির হুসেন চৌধুরী, কুচিলা গ্রামের সুমিত রায়, ইটরকান্দি গ্রামের সুয়েল আহমেদ চৌধুরী, বিলপার গ্রামের কামালউদ্দিন বড়ভুঁইঞা, রাজ দেবনাথ। সকলের বয়স ১০-১৪ বছরের মধ্যে।

প্রশাসনিক কর্তাদের আশঙ্কা, এমন আরও অনেক শিশু হাইলাকান্দির বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কাজ করছে। হাইলাকান্দির ডিসিপিও পরিণীতা হাজরিকা জানান, আপাতত উদ্ধার করা ওই শিশুদের হোমে রাখা হবে। অভিভাবকদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের ফের কাজে নিয়োগ না করার হলফনামা নিয়ে শিশুদের বাড়ি ফেরত পাঠানো হবে।

Advertisement

জেলাশাসক বরুণ ভুঁইঞা উদ্ধার হওয়া ওই শিশুদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি শিশুদের দিয়ে কাজ করানোকে ‘অমানবিক’ বলে মন্তব্য করেন। হাইলাকান্দির শ্রম পরিদর্শক আলিমউদ্দিন জানান, যাঁরা শিশুদের দিয়ে কাজ করাচ্ছিলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.