আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে অসম সরকার রাজ্যের ৪৭টি ভাষার নাম উল্লেখ করে একটি ভাষাবৃক্ষ তৈরি করেছে। ‘মাইগভআসাম’ নামের সরকারি অ্যাকাউন্ট থেকে সেটি আজ ভোরে টুইট করা হয়। অসমিয়া-কে মাথায় রেখে রাজ্যের ৪২টি জনজাতি ভাষা বা উপভাষার নাম সেই বৃক্ষে স্থান পেলেও, স্থান পায়নি ‘বাংলা’! 

যে রাজ্যের ব্রহ্মপুত্র উপত্যকায় বাংলা দ্বিতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ ভাষা, যে রাজ্যের বরাক উপত্যকায় বাংলাই প্রধান ভাষা সেখানে এই সরকারি ‘ভাষাবৃক্ষ’ সকাল থেকেই আলোড়ন তৈরি করে। বরাক উপত্যকার অনেকে টুইটারের মাধ্যমেই মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়ালের দিকে প্রশ্ন ছুড়ে দেন, বাংলাভাষী রাষ্ট্র গঠনের সংগ্রামকে মর্যাদা দিয়েই যে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ ঘোষণা, তা অসম সরকার জানে কী? এর পরেই টুইটার থেকে ভাষাবৃক্ষটি সরিয়ে নেওয়া হয়। বিষয়টি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘এর পিছনে এক গভীর ষড়যন্ত্র রয়েছে। এতে উগ্রশক্তির মৌলবাদী চরিত্রই প্রকট হয়েছে।’’ যে রাজ্যের বরাক উপত্যকায় ভাষা-আন্দোলনের রক্তাক্ত ইতিহাস রয়েছে, সেখানে এই ঘটনা ‘ভুল’ নয়, ইচ্ছাকৃত চক্রান্ত বলেই মনে করেন তিনি।