চাকরি ও শিক্ষায় তফসিলি জাতি, জনজাতি এবং ওবিসি-র বাইরে আর্থিক ভাবে অনগ্রসরদের জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণের পক্ষে বুধবার সুপ্রিম কোর্টে কেন্দ্রের হয়ে সওয়াল করলেন অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল। তাঁর বক্তব্য, স্বাধীনতার ৭০ বছর পরেও ২০ কোটি মানুষ দারিদ্র সীমার নীচে। তাঁদের উন্নতির জন্য পদক্ষেপ করা উচিত নয়, এটা কেউ বলতে পারেন না। ৫০ শতাংশের বেশি সংরক্ষণ করা যাবে না, এই যুক্তিও ঠিক নয়। তামিলনাড়ুতেই ৬৮ শতাংশ সংরক্ষণ রয়েছে। হাইকোর্ট তা বহালও রেখেছে। আর্থিক ভিত্তিতে সংরক্ষণ অবৈধ, এই যুক্তিও টেকে না। অতীতে সুপ্রিম কোর্টই একে বৈধ বলে রায় দিয়েছে।

এ দিনের শুনানিতে বিচারপতি এস এ বোবদের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চেরও পর্যবেক্ষণ, ‘‘গরিবদেরই রাষ্ট্রের সাহায্য প্রয়োজন, ধনীদের নয়।’’ সরকারি সিদ্ধান্তের বৈধতার প্রশ্নে নয়, এই বেঞ্চে শুনানি চলছে বাড়তি ১০ শতাংশ সংরক্ষণের জন্য ১০৩-তম সংবিধান সংশোধনের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে যে সব আবেদন জমা পড়েছে, সেগুলি সাংবিধানিক বেঞ্চ পাঠানো হবে কি না তা নিয়ে।

বেঞ্চ এ দিন রায় জানায়নি। দেয়নি স্থগিতাদেশও।