আয়কর বাড়বে না, প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে কংগ্রেস
কেরলে রাহুলের দু’দিনের সফর আজ থেকে শুরু হয়েছে। পাতানাপুরমের সভায় রাহুল কংগ্রেস ইস্তাহারে ঘোষিত  ন্যূনতম আয় যোজনা বা ন্যায়ের প্রসঙ্গ টেনে আনেন।
congress

ছবি: পিটিআই।

লোকসভা ভোটপর্ব চলার মধ্যেই দেশের মধ্যবিত্তদের খুশি করতে নামলেন রাহুল গাঁধী। জানিয়ে দিলেন, কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে ন্যায় প্রকল্পের জন্য তাদের উপর আয়করের বোঝা চাপবে না। এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বক্তব্যকে আজ সরাসরি খারিজ করে দিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি।

কেরলে রাহুলের দু’দিনের সফর আজ থেকে শুরু হয়েছে। পাতানাপুরমের সভায় রাহুল কংগ্রেস ইস্তাহারে ঘোষিত  ন্যূনতম আয় যোজনা বা ন্যায়ের প্রসঙ্গ টেনে আনেন। তাঁর দাবি, কংগ্রেস সরকারে এলে দেশের ২০ শতাংশ গরিব পরিবারের জন্য বছরে ৭২ হাজার টাকা দেওয়ার যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, তা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদী দেশকে বিভ্রান্ত করছেন। উনি বলছেন, পাঁচ বছরে গরিব পরিবারগুলিকে যে টাকা দেওয়া হবে, তা আসবে মধ্যবিত্তের পকেট থেকে, তাদের উপর আয়করের বোঝা বাড়িয়ে। এর পরেই রাহুলের মন্তব্য, ‘‘কেরল এবং গোটা দেশের মধ্যবিত্তদের সামনে স্পষ্ট করে দিতে চাই, আপনারা দেশের বৃদ্ধির ইঞ্জিন। আমরা মধ্যবিত্তের পকেট থেকে এক টাকাও নেব না। আয়করের হার বাড়বে না।’’ রাহুল বলেন, ‘‘নরেন্দ্র মোদী ৩৫ হাজার কোটি টাকা দিয়েছেন নীরব মোদীকে, ৩৫ হাজার কোটি দিয়েছেন মেহল চোক্সীকে, অনিল অম্বানীকে ৩০ হাজার কোটি। বিজয় মাল্য, ললিত মোদীরাও আছেন। ন্যায় প্রকল্পের জন্য টাকা এদেরকেই দিতে হবে।’’

কেরলের এই পাতানাপুরম জেলাতেই শবরীমালার মন্দির। সেখানে মহিলাদের প্রবেশাধিকার নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পরেও শুরু হয়েছে রাজনৈতিক বিতর্ক। রাহুল এ দিন দাবি করেন, নাগরিকদের আস্থা বিশ্বাস ও আবেগ প্রকাশের  স্বাধীনতায় বিশ্বাসী কংগ্রেস। তবে সেই বিশ্বাসে আঘাত আসতে পারে, এমন কিছুতে শামিল হবে না কংগ্রেস। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে দেব আয়প্পার নাম আজ উচ্চারণই করেননি রাহুল। এ দিন কোল্লামেও জনসভা ছিল রাহুলের। সব সভাতেই মোদী ও সঙ্ঘ পরিবারকে নিশানা করেন কংগ্রেস সভাপতি। রাহুল দাবি করেন, নোট বাতিল কিংবা জিএসটি চালুর  সিদ্ধান্ত নিয়ে মোদী দেশের যে ক্ষতি করেছেন, কংগ্রেসের ন্যায় প্রকল্প তাকে পূরণ করবে। পাতানাপুরমে রাহুলের সভায় দোভাষীর ভূমিকায় ছিলেন কংগ্রেস নেতা পি জে কুরিয়েন। কিন্তু সেই সময়ে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। যা নিয়ে রাহুল কিছুটা বিরক্ত হয়েছেন বলেই মনে হচ্ছিল।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

ভোটে লড়ার জন্য অমেঠীর পাশাপাশি কেরলের ওয়েনাড কেন্দ্রকে বেছেছেন রাহুল। কী কারণে এই সিদ্ধান্ত, সে কথাও জানান কংগ্রেস সভাপতি। তাঁর দাবি, কেরলের মানুষ সহিষ্ণু। বিভিন্ন সংস্কৃতিকে বোঝার চেষ্টা করে তারা। জনসভায় ভোটারদের উদ্দেশে রাহুল বলেন, ‘‘মন থেকে আমাকে ভাই ভাবুন।’’ কেরলের অন্য কেন্দ্র কেন্দ্রগুলির সঙ্গে ওয়ানাডের ভোটও ২৩ এপ্রিল। 

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত