রাফালের ফয়সালা হবে জনতার আদালতে: রাহুল
তাঁর জনসভায় রাহুল আজ ফের আওয়াজ তোলেন, “চৌকিদার”। জনতার জবাব আসে, “চোর হ্যায়।” সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ফের দুর্নীতি নিয়ে আলোচনায় মোদীকে চ্যালেঞ্জ ছোড়েন রাহুল।
rahul

পাশে: রায়বরেলীতে রাহুল। সোমবার। পিটিআই

নিজের মন্তব্যে দুঃখপ্রকাশ করে নরেন্দ্র মোদীকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন রাহুল গাঁধী। টুইটে ফের বললেন, জনতার আদালতেই ফয়সালা হবে ‘কমলছাপ’ চৌকিদারই চোর।

দেড় সপ্তাহ আগে রাফাল নিয়ে সুপ্রিম কোর্টেরই রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি গ্রহণ করেছে শীর্ষ আদালত। রাহুল সেই সময় ছিলেন অমেঠীতে। সেখানেই সাংবাদিকদের তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্ট স্পষ্ট করে দিয়েছে, চৌকিদারই চুরি করেছেন। এর পরেই বিজেপি সাংসদ মীনাক্ষী লেখি রাহুলের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আদালত অবমাননার মামলা করেন। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের বেঞ্চ আজকের মধ্যে জবাব দিতে বলেছিল রাহুলকে। রাহুল আজ জবাব দেন। ১১০ পাতার জবাবে রাহুল স্পষ্ট করেন, ভোটের উত্তপ্ত প্রচারে তাঁর মুখ থেকে এমন মন্তব্য বেরিয়ে গিয়েছে। এর জন্য দুঃখিত। আদালতকে অবমাননার কোনও অভিপ্রায়ই তাঁর নেই। তাঁর বিরোধীরা এমন ভাবে একে তুলে ধরতে চাইছে, যেন ইচ্ছাকৃত ভাবে এ কথা বলা হয়েছে। আগামিকাল এই নিয়ে শীর্ষ আদালত কী অবস্থান নেয়, সেটি দেখার।

কারণ, এখানেই থেমে থাকেননি কংগ্রেস সভাপতি। পরতে পরতে রাফাল নিয়ে মোদীকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন। এত দিন রাফাল নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে যায়নি কংগ্রেস। দলের মত, রাফালের তদন্ত একমাত্র যৌথ সংসদীয় কমিটিই করতে পারে। আজ প্রথম কংগ্রেসের সভাপতি সুপ্রিম কোর্টের কাছে রাফাল নিয়ে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন। এবং গোটা মোড়টি ঘুরিয়ে দিতে চাইলেন রাফালের দুর্নীতির দিকে আর তাতে প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা নিয়ে। প্রথমেই তিনি অভিযোগ করেন, রাফাল নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের আগের রায়ের পর নরেন্দ্র মোদীই বারবার বলেছেন, শীর্ষ আদালত তাঁকে ক্লিনচিট দিয়েছে। এর পর যখন সুপ্রিম কোর্ট পুনর্বিবেচনার আর্জি গ্রহণ করে, তাতে কংগ্রেসের অবস্থানেই সিলমোহর পড়ে। রাহুল উল্টে সুকৌশলে বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা গ্রহণের আর্জি জানান, যাঁরা আদালতের রায়কে মোদীর ক্লিনচিট বলে দাবি করেছেন।

তাঁর জনসভায় রাহুল আজ ফের আওয়াজ তোলেন, “চৌকিদার”। জনতার জবাব আসে, “চোর হ্যায়।” সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ফের দুর্নীতি নিয়ে আলোচনায় মোদীকে চ্যালেঞ্জ ছোড়েন রাহুল। বলেন,“আমি চলে যাব রেস কোর্স রোডে। ১৫ মিনিটের জন্য বিতর্ক করে নিন। কিন্তু নরেন্দ্র মোদী ভয় পান।” পরে টুইট করেন, “২৩ মে জনতার আদালতে ফয়সালা হয়ে যাবে, কমলছাপ চৌকিদারই চোর। ন্যায় হবেই। গরিবকে লুট করে ধনী বন্ধুদের লাভ দেওয়া চৌকিদারের সাজা হবে।”

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

কিন্তু আদালতে দুঃখপ্রকাশের পর রাহুলের ‘মিথ্যা’ নিয়ে পাল্টা প্রচার পুরোদমে শুরু করে দেয় বিজেপি। মীনাক্ষী লেখি বলেন, “এটাই তাঁর অপরাধ স্বীকার করা। সে কারণেই আদালত অবমাননা হওয়া উচিত।” নির্মলা সীতারামনের মতে, নিজের বিশ্বাসযোগ্যতা নষ্ট করেছেন রাহুল। প্রকাশ জাভড়েকর বলেন, ‘‘রাহুলের মিথ্যা ধরা পড়ে গিয়েছে।’’ অরুণ জেটলিও টুইট করেন, ‘‘ক্ষমা চাওয়ার পরেই রাহুলের বয়ানের বিশ্বাসযোগ্যতা শেষ হয়ে গিয়েছে।’’

কংগ্রেস বলছে, গুজব ছড়ানোর সীমা অতিক্রম করেছে বিজেপি। রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা বলেন, “যে ভাবে রাহুল গাঁধীর জবাব নিয়ে বিজেপি ভ্রম ছড়াচ্ছে, সেটিও আদালত অবমাননার শামিল। মামলা বিচারাধীন, কিন্তু বিজেপি আগেই ফয়সালা শোনাচ্ছে। মোদী কি দাবি করেননি যে রাফালে কোর্ট তাঁকে ক্লিনচিট দিয়েছে? ”  

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত