দুবাইয়ে একটি এমব্রয়ডারি কারখানায় কাজের ফাঁকে ছুটিতে বাড়ি ফিরেছিলেন মাস খানেক আগে। রাতে বন্ধুদের সঙ্গে বেরিয়েছিলেন। ছুটি কাটিয়ে ফের দুবাইয়ে ফেরার কথা ছিল তাড়াতাড়িই। আর ফেরা হল না। তার আগেই বছর বাইশের যুবককে মোষ চোর সন্দেহে পিটিয়ে মারলেন গ্রামবাসীরা। ঘটনাস্থল উত্তরপ্রদেশের বরেলি জেলার ভোলাপুর হিন্দোলিয়া গ্রাম। মৃতের নাম শাহরুখ খান। ময়নাতদন্তের পর চিকিৎসক জানিয়েছেন, লিভার ও কিডনিতে অভ্যন্তরীণ রক্তক্ষণের জেরেই মৃত্যু হয়েছে শাহরুখের।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে দুই বন্ধুর সঙ্গে পাশের গ্রামে গিয়েছিলেন শাহরুখ। আচমকাই এক দল গ্রামবাসী তাঁদের মোষ চোর সন্দেহে তাড়া করেন। তাঁর দুই বন্ধু পুকুরে ঝাঁপ দিয়ে সাঁতরে কোনওক্রমে পালিয়ে যান। কিন্তু শাহরুখকে ধরে ফেলেন গ্রামবাসীরা।

এর পরই তাঁকে ঘিরে শুরু হয় গণপিটুনি। এলোপাথাড়ি মারধরে ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন শাহরুখ। গ্রামবাসীদের দাবি, মোষ চুরি করতেই গ্রামে ঢুকেছিলেন তিন জন। ভোরের দিকে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে শাহরুখকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু কিছু ক্ষণ পর হাসপাতালেই মারা যান শাহরুখ। পুলিশই খবর পাঠায় শাহরুখের পরিবারের লোকজনকে।

আরও পড়ুন: পাঁচ মিনিটেই প্রধানমন্ত্রী ঠিক হয়ে যাবে, এবার ফর্মুলা দিলেন লালু

শাহরুখের দাদা ফিরোজ জানান, ‘‘শাহরুখ বন্ধুদের সঙ্গে বেরিয়েছিলেন। রাতে বাড়ি না ফেরায় আমরা ভেবেছিলাম, সকালে ফিরবেন। কিন্তু সকালে পুলিশ ফোন করে আমাদের মৃত্যুর খবর দেয়।’’ মোষ চুরির সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়ে ফিরোজ বলেন, শাহরুখ স্বাবলম্বী। দুবাইতে ভাল চাকরি করে। এর আগে দিল্লি, মুম্বইতেও কাজ করেছে। কখনও তাঁর বিরুদ্ধে কোনও খারাপ কাজের অভিযোগ ওঠেনি। মোষ চুরির অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।’’

আরও পড়ুন: রেগে গিয়ে পাওয়ার ব্যাঙ্ক ছুড়ে ফেলতেই বিস্ফোরণ, দিল্লি বিমানবন্দরে গ্রেফতার মহিলা

পুলিশ জানিয়েছে, প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, গণপিটুনিতেই মৃত্যু হয়েছে শাহরুখের। তবে ওই যুবকের ড্রাগের নেশা ছিল। সব দিকই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বরেলির পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, শাহরুখকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগে ২৫ জনের বিরুদ্ধে একটি এফআইআর দায়ের হয়েছে। অন্য দিকে গ্রামবাসীরাও মোষ চুরির একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। দু’টি অভিযোগই খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

(কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী, গুজরাত থেকে মণিপুর - দেশের সব রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)