ভারতীয় মুসলমানদের ‘পাকিস্তানে পাঠিয়ে দেওয়ার’ আর্জি নিয়ে একেবারে দেশের শীর্ষ আদালতে মামলা করেছিলেন এক ব্যক্তি! আর মামলার বিষয়বস্তু শুনেই তীব্র ক্ষোভে ফেটে পড়লেন বিচারপতি রোহিংটন নরিম্যান। শেষ পর্যন্ত মামলাটি খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

বিজেপি-সঙ্ঘ পরিবার বা নরেন্দ্র মোদী সরকারের সমালোচকেরা গত পাঁচ বছরে নানা ভাবে গৈরিক শিবিরের রোষের শিকার হয়েছেন। সমালোচককে ‘দেশদ্রোহী’ তকমা দেওয়াই শুধু নয়, তিনি মুসলমান হলে তাঁকে ‘পাকিস্তানে পাঠিয়ে দেওয়া’র হুমকিও এসেছে। যদিও সেই হুমকিকে কার্যকর করা যায়নি। সেই ‘আক্ষেপ’ থেকেই মুসলমানদের পাকিস্তানে পাঠিয়ে দেওয়ার আর্জি নিয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন এক ব্যক্তি। শুক্রবার মামলাটি ওঠে বিচারপতি রোহিংটন নরিম্যান এবং বিচারপতি বিনীত সারান-এর এজলাসে। 

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

‘বার অ্যান্ড বেঞ্চ’ প্রকাশিত খবরে জানা গিয়েছে, আবেদনটি শুনেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন বিচারপতি নরিম্যান। তিনি আবেদনকারীর আইনজীবীকে বলেছেন, মামলার বিষয়বস্তুটি জোরে জোরে পড়তে। আইনজীবী সেটি করার পরে ক্ষোভে ফেটে পড়ে বিচারপতি মামলাকারীর উদ্দেশে বলেন, ‘‘আপনি সত্যিই এটা নিয়ে শুনানি চান? আমরা শুনব, কিন্তু আপনার কড়া ভর্ৎসনা করব।’’ বিচারপতির এই প্রশ্নের জবাবে উত্তর আসে ‘না’। তার পরে আবেদনটি খারিজ হয়ে যায়। দেশে সাম্প্রদায়িক ঘৃণার পরিসর গত কয়েক বছরে যে ভাবে বেড়েছে, তাতে উদ্বিগ্ন সমাজের সব স্তরের মানুষ। তার পরিপ্রেক্ষিতে এ দিন বিচারপতি নরিম্যানের ভূমিকায় উচ্ছ্বসিত অনেকে। টুইটারে অনেকেই তাঁর প্রশংসা করেছেন।