হুমকি ছিলই, এ বার ভারতের বিরুদ্ধে পাল্টা সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করে ৩০ জওয়ানকে হত্যার দাবি করলেন জামাত-উদ-দাওয়া প্রধান ও মুম্বই হামলার চক্রী হাফিজ সইদ।

সোমবার জম্মু-কাশ্মীরের আখনুরে চার জন জঙ্গি জেনারেল রিজার্ভ ইঞ্জিনিয়ার্স ফোর্সের (জিআরইএফ) শিবিরে হামলা চালায়। সেই হামলায় তিন জন শ্রমিক নিহত হন বলে ভারতীয় সেনার তরফে জানানো হয়। বুধবার এক অডিও রেকর্ডে সেই ঘটনাকেই হাফিজ সার্জিক্যাল স্ট্রাইক বলে দাবি করেন। জানান, ভোরের অন্ধকারে আখনুরের ওই সেনা ক্যাম্পে ঢুকে ৩০ জন জওয়ানকে হত্যা করে স্বস্থানে ফিরে এসেছে চার জঙ্গি। জঙ্গিদের গুলিতে সেনা ক্যাম্প তছনছ হয়ে গিয়েছে। অথচ, জঙ্গিদের গায়ে নাকি একটা আঁচড়ও কাটতে পারেননি ভারতীয় সেনারা। হাফিজ সইদ যখন বুক ফুলিয়ে এ কথাগুলো বলছেন অডিওতে ভারতীয় সেনার ব্যর্থতাকে উদ্দেশ্য করে অনেকের কটাক্ষের হাসিও শোনা গিয়েছে।

ভারতীয় সেনার তরফে অবশ্য তাঁর দাবিকে ফুৎকারে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। সোমবার ভোর রাতে যে জঙ্গি হামলার কথা তিনি বলেছেন তা মেনে নিলেও বাকি তথ্যের পুরোটাই  ভুয়ো বলে দাবি সেনার। কারণ প্রথমত, ওই হামলায় কোনও সেনার মৃত্যু ঘটেনি। দ্বিতীয়ত, ৩০ জন নন, মাত্র ৩ জন শ্রমিক মারা গিয়েছেন। তৃতীয়ত এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, জিইআরএফ কোনও সেনা ক্যাম্পই নয়। দেশের সীমান্ত এলাকায় রাস্তা তৈরি ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে ‘বর্ডার রোডস অর্গানাইজেশন’-এর অন্তর্গত জিইআরএফ। অতর্কিতে হামলার পর যা তছনছ করতেও জঙ্গিরা সফল হয়নি। হামলার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় সেনাবাহিনী। যার পর জঙ্গিরা পালাতে বাধ্য হয়। সেনার দাবি, নিজেদের ক্ষমতা জাহির করতে হাফিজ যে অহেতুক মিথ্যার আশ্রয় নিচ্ছেন, ওই অডিও তারই প্রমাণ।

আরও পড়ুন: ছেলেকে খোলা আকাশ দিতে চেয়েছিল খড়্গপুরের ‘রেল মাফিয়া’ শ্রীনু

অডিওতে ঠিক কী শোনা গিয়েছে?

ঊর্দুতে হাফিজের বক্তব্য, দু’দিন আগেই চার পাকিস্তানি জম্মু-কাশ্মীরের আখনুরে প্রবেশ করে ভারতীয় সেনা ক্যাম্পে হামলা চালায়। ১০টি ক্যাম্প নিশ্চিহ্ন করে দিয়ে আবার নিজেদের জায়গায় ফিরে আসে তারা। তাদের গায়ে আঁচড় পর্যন্ত লাগাতে পারেনি ভারতীয় সেনা। এর পরই উরি হামলার বদলা হিসাবে মোদীর সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের তীব্র ব্যঙ্গ করে হাফিজ বলেন, ‘‘একেই বলে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক। অভিনয় করে নকল সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের ছবি মোদী বিশ্ববাসীকে দেখিয়েছিলেন। সার্জিক্যাল স্ট্রাইক কী করে করতে হয় মুজাহিদিনের থেকে শিখুন মোদী।’’

ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর গত বছরের নভেম্বরেই পাল্টা আক্রমণের হুমকি দিয়েছিলেন তিনি। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মিরপুরে একটি জনসভায় সইদ মন্তব্য করেছিলেন, ‘‘মোদী যা করার করেছেন। এ বার কাশ্মীরে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করার পালা মুজাহিদিনদের।’’ জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-তৈবার প্রতিষ্ঠাতার হুমকি ছিল, ‘‘ভারত যে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করেছে, দুনিয়া তাতে গুরুত্ব দেয়নি। কিন্তু মুজাহিদিনরা যা ঘটাতে চলেছে, মানুষ অনেকদিন তা মনে রাখবে।’’