আজ রাতে পৃথিবীর ছায়ায় ঢেকে যাবে চাঁদ। সূর্যের আলো পড়বে না তার গায়ে, একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য। এই ভাবেই গ্রহণ লাগবে চাঁদে। যাকে বিজ্ঞানের পরিভাষায় বলে, পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ। এটাই এ বছরের একমাত্র পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ। আজই চাঁদ আমাদের চোখে ধরা পড়বে একটু অন্য রকম রঙে। অন্য রকম চেহারায়। যার নাম- ‘সুপার ব্লাড মুন’। জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, ওই গ্রহণ দেখা যাবে উত্তর আমেরিকা,দক্ষিণ আমেরিকা,আফ্রিকা মহাদেশের পশ্চিম অংশ ও ইউরোপের কয়েকটি দেশ থেকে। তবে ভারত থেকে দেখা যাবে না এই গ্রহণ। এশিয়া মহাদেশের কোনও দেশ থেকেই এই গ্রহণ দেখতে পাওয়ার সম্ভাবনা নেই।

ভারত থেকে দেখা যাবে না কেন পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ? 

প্যাসিফিক স্ট্যান্ডার্ড টাইম (পিএসটি) অনুসারে ২০ জানুয়ারি, রবিবার সন্ধ্যা ৭ টা ৩৪ মিনিটে শুরু হবে চন্দ্রগ্রহণ। যা ভারতীয় সময়ে ২১ জানুয়ারি, সোমবার সকাল ৯টার কাছাকাছি। দিনে সূর্যের আলোয় ঢাকা পড়ে যায় চাঁদ। তাই এ বার ভারত থেকে দেখা যাবে না সেই গ্রহণ। এমনটাই জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

সুপার ব্লাড মুন কী?

এই চন্দ্রগ্রহণের সময় চাঁদের দিকে তাকালে দেখা যাবে লাল রঙের আভা। প্রতিসরণের (রিফ্র্যাকশান) ফলে আলো পৃথিবী থেকে ঠিকরে চাঁদের অন্ধকার জায়গায় গিয়ে পড়ার জন্যই চাঁদকে লাল রঙের দেখায়। তাই সেই চাঁদকে বলা হয় ‘ব্লাড মুন’।

সেই ব্লাড মুন সুপার হয়ে ওঠে কী ভাবে?

গ্রহণ চলার সময় পৃথিবীর খুব কাছে থাকবে চাঁদ। তার ফলে, চাঁদকে স্বাভাবিকের তুলনায় চেহারায় প্রায় ১৪ শতাংশ বড় দেখাবে। তাই লাল চাঁদ হয়ে উঠবে ‘সুপার ব্লাড মুন’। তাই পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণের মতো এ বার ‘সুপার ব্লাড মুন’ও দেখা যাবে না ভারতে।

 

ফের কবে চন্দ্রগ্রহণ দেখতে পাব আমরা?

এ বছরের একমাত্র পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ দেখার সৌভাগ্য না হলেও, ২০১৯-এর মাঝামাঝি ফের চন্দ্রগ্রহণ হবে। ১৬-১৭ জুলাই। আংশিক চন্দ্রগ্রহণ। সেই গ্রহণ অবশ্য দেখা যাবে ভারতের মাটি থেকেও।

জুলাইয়েই পূর্ণগ্রাস সূর্যগ্রহণ 

আজ আর জুলাইয়ের চন্দ্রগ্রহণের মাঝে জুলাইয়ের গোড়াতেই হবে পূর্ণগ্রাস সূর্যগ্রহণ। তবে সেই সূর্যগ্রহণও ভারত থেকে দেখা যাবে না বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।