Advertisement
১৭ জুলাই ২০২৪
Banking Tips

Recurring deposit account: ব্যাঙ্ক হোক বা ডাকঘর, অনলাইনে কী ভাবে খুলবেন রেকারিং ডিপোজিট

সাধারণত রেকারিং ডিপোজিটের মেয়াদ ছ’মাস থেকে ১০ বছর পর্যন্ত হতে পারে। এখানে বিনিয়োগের সুবিধা হল নির্দিষ্ট সময়সীমা পার করলে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ হাতে আসবেই।

তন্ময় দাস
শেষ আপডেট: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ০৭:০৫
Share: Save:
০১ ১৪
বিনিয়োগের ময়দানে দুঁদে হন বা নতুন খেলোয়াড়, প্রত্যেকেই জানেন যে নিরাপদ ঝুঁকিহীন বিনিয়োগের অন্যতম মাধ্যম হল রেকারিং ডিপোজিট। যেখানে প্রতি মাসে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ জমা করা যায়।

বিনিয়োগের ময়দানে দুঁদে হন বা নতুন খেলোয়াড়, প্রত্যেকেই জানেন যে নিরাপদ ঝুঁকিহীন বিনিয়োগের অন্যতম মাধ্যম হল রেকারিং ডিপোজিট। যেখানে প্রতি মাসে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ জমা করা যায়।

০২ ১৪
এই ক্ষেত্রে ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসে সুদের হার নির্দিষ্ট করা থাকে এবং এই হার রেকারিং ডিপোজিটের সম্পূর্ণ মেয়াদে পরিবর্তন হয় না। মেয়াদপূর্তিতে সুদ-সহ টাকা বিনিয়োগকারীর অ্যাকাউন্টে চলে আসে।

এই ক্ষেত্রে ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসে সুদের হার নির্দিষ্ট করা থাকে এবং এই হার রেকারিং ডিপোজিটের সম্পূর্ণ মেয়াদে পরিবর্তন হয় না। মেয়াদপূর্তিতে সুদ-সহ টাকা বিনিয়োগকারীর অ্যাকাউন্টে চলে আসে।

০৩ ১৪
সাধারণত রেকারিং ডিপোজিটের মেয়াদ ছ’মাস থেকে ১০ বছর পর্যন্ত হতে পারে। এখানে বিনিয়োগের সুবিধা হল নির্দিষ্ট সময়সীমা পার করলে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ হাতে আসবেই। এই অঙ্ক নির্ভুল ভাবে বিনিয়োগের শুরুতেই করা যায়। আর তাতে ঝুঁকিও থাকে না।

সাধারণত রেকারিং ডিপোজিটের মেয়াদ ছ’মাস থেকে ১০ বছর পর্যন্ত হতে পারে। এখানে বিনিয়োগের সুবিধা হল নির্দিষ্ট সময়সীমা পার করলে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ হাতে আসবেই। এই অঙ্ক নির্ভুল ভাবে বিনিয়োগের শুরুতেই করা যায়। আর তাতে ঝুঁকিও থাকে না।

০৪ ১৪
সেই কারণেই যে সমস্ত বিনিয়োগকারী কোনও ভাবেই ঝুঁকি নিতে চান না বা ঝুঁকি নিতে ভয় পান, তাঁদের ক্ষেত্রে ইক্যুইটিতে বিনিয়োগ করার থেকে রেকারিং ডিপোজিটে বিনিয়োগ করা অনেকটাই নিরাপদ। কারণ এই ধরনের ডিপোজিট কোনও ভাবেই বাজারের সঙ্গে যুক্ত থাকে না। সেই সঙ্গে অঙ্ক কষে বের করা একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থও হাতে এসে যায়।

সেই কারণেই যে সমস্ত বিনিয়োগকারী কোনও ভাবেই ঝুঁকি নিতে চান না বা ঝুঁকি নিতে ভয় পান, তাঁদের ক্ষেত্রে ইক্যুইটিতে বিনিয়োগ করার থেকে রেকারিং ডিপোজিটে বিনিয়োগ করা অনেকটাই নিরাপদ। কারণ এই ধরনের ডিপোজিট কোনও ভাবেই বাজারের সঙ্গে যুক্ত থাকে না। সেই সঙ্গে অঙ্ক কষে বের করা একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থও হাতে এসে যায়।

০৫ ১৪
অতীতে শুধুমাত্র নিকটবর্তী ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসে গিয়ে বিনিয়োগকারীদের রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট খুলতে হত। এখন সময় বদলেছে। ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থায় এসেছে প্রযুক্তির ছোঁয়া। বর্তমানে গ্রাহকরা রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন অনলাইনেই। দিতে পারবেন টাকা জমাও।

অতীতে শুধুমাত্র নিকটবর্তী ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসে গিয়ে বিনিয়োগকারীদের রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট খুলতে হত। এখন সময় বদলেছে। ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থায় এসেছে প্রযুক্তির ছোঁয়া। বর্তমানে গ্রাহকরা রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন অনলাইনেই। দিতে পারবেন টাকা জমাও।

০৬ ১৪
যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এখন অনেক কিছুই বাড়িতে বসে করা যায়। ব্যাঙ্কের পাশাপাশি পোস্ট অফিসের ক্ষেত্রেও এই সুবিধা পাওয়া যাবে। যে হেতু দেশের এক বিরাট অংশের নাগরিক পোস্ট অফিসের মাধ্যমে টাকা জমিয়ে থাকেন, সে হেতু এই সুবিধা পোস্ট অফিসে চলে আসায় উপকৃত হবেন বিপুল সংখ্যক মানুষ। পোস্ট অফিসে না গিয়ে বাড়ি থেকেই কী ভাবে রেকারিং ডিপোজিট করতে পারবেন, জেনে নিন।

যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এখন অনেক কিছুই বাড়িতে বসে করা যায়। ব্যাঙ্কের পাশাপাশি পোস্ট অফিসের ক্ষেত্রেও এই সুবিধা পাওয়া যাবে। যে হেতু দেশের এক বিরাট অংশের নাগরিক পোস্ট অফিসের মাধ্যমে টাকা জমিয়ে থাকেন, সে হেতু এই সুবিধা পোস্ট অফিসে চলে আসায় উপকৃত হবেন বিপুল সংখ্যক মানুষ। পোস্ট অফিসে না গিয়ে বাড়ি থেকেই কী ভাবে রেকারিং ডিপোজিট করতে পারবেন, জেনে নিন।

০৭ ১৪
প্রথমে ebanking.indiapost.gov.in ওয়েবসাইটে যান। এর পরে নিজের ইউজার আইডি এবং লগ ইন পাসওয়ার্ড বানিয়ে লগ ইন করুন। লগ ইন করার পরে একটি ড্যাশবোর্ড সেকশনে আপনাকে রিডাইরেক্ট করা হবে। সেখানে জেনারেল সার্ভিস অপশনে ক্লিক করবেন।

প্রথমে ebanking.indiapost.gov.in ওয়েবসাইটে যান। এর পরে নিজের ইউজার আইডি এবং লগ ইন পাসওয়ার্ড বানিয়ে লগ ইন করুন। লগ ইন করার পরে একটি ড্যাশবোর্ড সেকশনে আপনাকে রিডাইরেক্ট করা হবে। সেখানে জেনারেল সার্ভিস অপশনে ক্লিক করবেন।

০৮ ১৪
সার্ভিস অপশনে ক্লিক করার পরে সার্ভিস রিকোয়েস্ট ট্যাবে ক্লিক করুন। এর পর ড্রপ ডাউন মেনু থেকে নিউ রিকোয়েস্ট সিলেক্ট করুন। সিলেক্ট করার পরে রিকোয়েস্ট টাইপে রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট অপশনে ক্লিক করতে হবে।

সার্ভিস অপশনে ক্লিক করার পরে সার্ভিস রিকোয়েস্ট ট্যাবে ক্লিক করুন। এর পর ড্রপ ডাউন মেনু থেকে নিউ রিকোয়েস্ট সিলেক্ট করুন। সিলেক্ট করার পরে রিকোয়েস্ট টাইপে রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট অপশনে ক্লিক করতে হবে।

০৯ ১৪
এর পরে অনলাইনে একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে। সমস্ত তথ্যাদি সেখানে নথিভুক্ত করতে হবে। তবে সাবধান। প্রত্যেকটি তথ্য যেন সঠিক থাকে। প্রয়োজনে তা একাধিক বার যাচাই করে নেওয়া উচিত। না হলে ভবিষ্যতে বিপদ হতে পারে। আটকে যেতে পারে সম্পূর্ণ টাকা।

এর পরে অনলাইনে একটি ফর্ম পূরণ করতে হবে। সমস্ত তথ্যাদি সেখানে নথিভুক্ত করতে হবে। তবে সাবধান। প্রত্যেকটি তথ্য যেন সঠিক থাকে। প্রয়োজনে তা একাধিক বার যাচাই করে নেওয়া উচিত। না হলে ভবিষ্যতে বিপদ হতে পারে। আটকে যেতে পারে সম্পূর্ণ টাকা।

১০ ১৪
এর পর সাবমিট অনলাইন অপশনে ক্লিক করতে হবে। এর পরে আপনাকে রিকোয়েস্ট কনফার্মেশন পেজে পাঠানো হবে। সেখানে সমস্ত বিবরণ দিয়ে সাবমিট অপশনে ক্লিক করতে হবে। এর পর রেফারেন্স আইডি নম্বর সমেত আপনি একটি অনলাইন রশিদ পাবেন।

এর পর সাবমিট অনলাইন অপশনে ক্লিক করতে হবে। এর পরে আপনাকে রিকোয়েস্ট কনফার্মেশন পেজে পাঠানো হবে। সেখানে সমস্ত বিবরণ দিয়ে সাবমিট অপশনে ক্লিক করতে হবে। এর পর রেফারেন্স আইডি নম্বর সমেত আপনি একটি অনলাইন রশিদ পাবেন।

১১ ১৪
আপনি চাইলে অনলাইন রশিদটি পিডিএফ ফরম্যাটে ডাউনলোড করে নিতে পারেন। এই সমস্ত পদ্ধতি ঠিক মতো মেনে চললেই আপনার রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট খুলে যাবে।

আপনি চাইলে অনলাইন রশিদটি পিডিএফ ফরম্যাটে ডাউনলোড করে নিতে পারেন। এই সমস্ত পদ্ধতি ঠিক মতো মেনে চললেই আপনার রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট খুলে যাবে।

১২ ১৪
রেকারিং ডিপোজিটে টাকা জমা করবেন কী ভাবে? প্রথমে আইপিআরবি মোবাইল ব্যাঙ্কিং অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করুন। সেখানে নিজের চার সংখ্যার পিন নম্বরটা দিতে হবে। এর পরই ডিওপি সার্ভিস অপশন ক্লিক করতে হবে। এর পর রেকারিং ডিপোজিট অপশনে ক্লিক করতে হবে।

রেকারিং ডিপোজিটে টাকা জমা করবেন কী ভাবে? প্রথমে আইপিআরবি মোবাইল ব্যাঙ্কিং অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করুন। সেখানে নিজের চার সংখ্যার পিন নম্বরটা দিতে হবে। এর পরই ডিওপি সার্ভিস অপশন ক্লিক করতে হবে। এর পর রেকারিং ডিপোজিট অপশনে ক্লিক করতে হবে।

১৩ ১৪
সেখানে রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট নম্বর, ডিওপি কাস্টমার আইডি, ইনস্টলমেন্ট অ্যামাউন্ট, ইনস্টলমেন্টের মোট নম্বর ইত্যাদি সমস্ত তথ্য দিতে হবে। সমস্ত তথ্য দেওয়ার পরে কন্টিনিউ বাটনে ক্লিক করে স্ক্রিনের ডিটেইলস বোতামে ক্লিক করুন।

সেখানে রেকারিং ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট নম্বর, ডিওপি কাস্টমার আইডি, ইনস্টলমেন্ট অ্যামাউন্ট, ইনস্টলমেন্টের মোট নম্বর ইত্যাদি সমস্ত তথ্য দিতে হবে। সমস্ত তথ্য দেওয়ার পরে কন্টিনিউ বাটনে ক্লিক করে স্ক্রিনের ডিটেইলস বোতামে ক্লিক করুন।

১৪ ১৪
এর পর পে অপশনে ক্লিক করুন৷ এর পরেই আপনার নথিভুক্ত মোবাইল নম্বরে একটি ওটিপি আসবে। সেটি প্রদান করুন। ওটিপি সঠিক ভাবে দেওয়ার পরেই আপনার মোবাইলে সাক্সেসফুল পেমেন্ট মেসেজ আসবে। তা ছাড়া আপনার স্ক্রিনেও সেটি দেখা যাবে।

এর পর পে অপশনে ক্লিক করুন৷ এর পরেই আপনার নথিভুক্ত মোবাইল নম্বরে একটি ওটিপি আসবে। সেটি প্রদান করুন। ওটিপি সঠিক ভাবে দেওয়ার পরেই আপনার মোবাইলে সাক্সেসফুল পেমেন্ট মেসেজ আসবে। তা ছাড়া আপনার স্ক্রিনেও সেটি দেখা যাবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE