• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ডিন্ডাকে রেখেই বাংলা দল

Dinda is included in Bengal 15 members team
নজরে: শনিবার দলের সঙ্গে কেরল যাচ্ছেন ডিন্ডা। ফাইল চিত্র

কেরলের বিরুদ্ধে ১৭ ডিসেম্বর তিরুঅনন্তপুরমে বাংলার প্রথম ম্যাচ। রঞ্জি ট্রফির প্রথম ম্যাচ খেলতে ১৪ ডিসেম্বরেই কেরল উড়ে যাচ্ছেন অভিমন্যু ঈশ্বরনেরা। তার আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে ১৫ জনের দল ঘোষণা করা হয় সিএবি-তে।

আপাতত একটি ম্যাচের জন্যেই দল বেছে নিয়েছে নির্বাচকদের নতুন কমিটি। অভিজ্ঞতার উপর ভরসা রেখে প্রথম ম্যাচের দল গড়া হয়েছে। বহু বিতর্কের পরেও বাংলার ১৫ জনের দলে অশোক ডিন্ডা। সৈয়দ মুস্তাক আলি টি-টোয়েন্টি দল থেকে বাদ পড়ার পরে ডিন্ডা বলেছিলেন, ‘‘বাংলার জার্সিতে আর মাঠে নামব না।’’ সিএবি থেকে বেশ কয়েক বার অনুরোধ করার পরে বাংলার অনুশীলনে আসতে শুরু করেন। প্রস্তুতি ম্যাচে মধ্যপ্রদেশের বিরুদ্ধে তিন উইকেট নিয়ে প্রমাণও করেন, তিনি তৈরি। শনিবার দলের সঙ্গেই উড়ে যাচ্ছেন বাংলার অভিজ্ঞ সৈনিক।

পাঁচ বছর পরে রঞ্জি ট্রফি দলে ফেরানো হয়েছে অর্ণব নন্দীকেও। অভিষেক রামন, ঈশ্বরনের সঙ্গে তৃতীয় ওপেনার হিসেবে যাচ্ছেন কৌশিক ঘোষ। সম্প্রতি প্রস্তুতি ম্যাচে তাঁর রান দেখেই দলে নেওয়া হয়েছে। বাঁ-হাতি ওপেনার প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে ৯১ রান করার পরে এ দিন মধ্যপ্রদেশের বিরুদ্ধে ৫৪ রান করেন। অন্য দিকে ডিন্ডার সঙ্গে পেস বিভাগের দায়িত্ব সামলাবেন ঈশান পোড়েল ও মুকেশ কুমার। দলে নেই আকাশ দীপ। কেন নেওয়া হল না বাংলার তরুণ পেসারকে? নির্বাচকদের কমিটির প্রধান পলাশ নন্দীর উত্তর, ‘‘আপাতত অনূর্ধ্ব-২৩ কর্নেল সি কে নাইডু ট্রফি খেলুক। কেরলে যদি দেখা যায় সবুজ উইকেট, তখন ওকে ডেকে নেওয়া হবে।’’ স্পিন বিভাগে অর্ণবের সঙ্গে থাকছেন শাহবাজ আহমেদ ও অনূর্ধ্ব-২৩ জাতীয় ওয়ান ডে-র সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক প্রদীপ্ত প্রামাণিক। 

রঞ্জি অভিযানে প্রথম ম্যাচের দল নিয়ে খুশি অধিনায়ক অভিমন্যু। বৃহস্পতিবার সিএবি-তে তিনি বলেন, ‘‘সেরা ১৫জন নিয়ে প্রথম ম্যাচ খেলতে যাচ্ছি। মধ্যপ্রদেশের বিরুদ্ধে দু’টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে দেখে নেওয়া হয়েছে কোথায় উন্নতি প্রয়োজন। তার আগে লক্ষ্মণ স্যরের ক্লাসেও নিজেদের ভুল স‌ংশোধন করার চেষ্টা করেছে প্রত্যেকে।’’

ব্যাটিং নিয়েই মূল উদ্বেগ ছিল দলের। কিন্তু এ দিন প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলার ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্স দলের মনোবল কিছুটা ফিরিয়েছে। রানে ফিরেছেন সহ-অধিনায়ক সুদীপ চট্টোপাধ্যায় (৭২)। এ ছাড়াও ৬০ রান করেন অনুষ্টুপ মজুমদার, ৬৫ রান শ্রীবৎস গোস্বামীর। 

বাংলা দল: অভিমন্যু ঈশ্বরন (অধিনায়ক), সুদীপ চট্টোপাধ্যায় (সহ-অধিনায়ক), শ্রীবৎস গোস্বামী, অভিষেক রামন, মনোজ তিওয়ারি,  কৌশিক ঘোষ, ঋত্বিক রায়চৌধুরী, অশোক ডিন্ডা, মুকেশ কুমার, ঈশান পোড়েল, প্রদীপ্ত প্রামাণিক, অর্ণব নন্দী, অনুষ্টুপ মজুমদার, শাহবাজ আহমেদ ও বি অমিত।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন