দুই টেস্টের তিন ইনিংসে তাঁর মোট রান ১৯৫। গড় ৬৫। অস্ট্রেলিয়ায় স্বপ্নের অভিষেকের পর তাঁর সঙ্গে বীরেন্দ্র সহবাগের পর্যন্ত তুলনা শুরু হয়েছে।

কিন্তু ২৭ বছরের মায়াঙ্ক আগরওয়াল নিজে কী বলছেন? বুধবার নয়াদিল্লিতে সংবাদসংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ভারতীয় দলের নতুন ওপেনার জানিয়েছেন, সহবাগ তাঁর বর্ণোজ্জ্বল ক্রিকেট কেরিয়ারে যা করেছেন, তার অর্ধেক করতে পারলে খুশি হবেন। মায়াঙ্ক বলেছেন, ‘‘আমি এমনিতে তুলনায় মোটেও বিশ্বাসী নই। কিন্তু সহবাগ ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম সেরা তারকা। আমার লক্ষ্য থাকে মাঠে নেমে নিজের সেরাটা উপহার দেওয়ার। সেভাবে বলতে গেলে, সহবাগ যা করেছেন তার অর্ধেক করতে পারলেই গর্বিত হব।’’

মেলবোর্নে মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্স এবং জশ হেজ্‌লউডের বিরুদ্ধে টেস্ট অভিষেক এবং সফল। মায়াঙ্ক বলেছেন, ‘‘বক্সিং ডে- টেস্টে এমসিজিতে অভিষেকের বিশেষ একটা তৃপ্তি রয়েছে। যে কোনও ক্রিকেটারের কাছে সেটা এক বিরাট মুহূর্ত। খেলার সুযোগ পেয়েই আমি মনে মনে উত্তেজিত হয়ে উঠেছিলাম। সত্যি বলতে, মাঠের ধারে বসে থাকার চেয়ে দলের অঙ্গ হিসাবে মাঠে নেমে কিছু করার ব্যাপারটা আমাকে তাতিয়ে দিয়েছিল।’’ আরও বলেছেন, ‘‘উপমহাদেশের প্রথম দল হিসাবে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জয়ের সাক্ষী থাকা আমার জীবনের এক সেরা অভিজ্ঞতা।’’

মায়াঙ্ক মনে করছেন, ভারতীয় ‘এ’ দলের হয়ে নিউজিল্যান্ড সফরই তাঁকে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অভাবনীয় টেস্ট অভিষেকের পথ তৈরি করে দিয়েছে। বলেছেন, ‘‘নিউজিল্যান্ডের ওই সফর থেকে অনেক কিছু শিখেছি। অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়ার সঙ্গে বেশ সাদৃশ্য ছিল নিউজিল্যান্ডে। উইকেটও গতিশীল ছিল। ওখানে খেলে আমার উপকারই হয়েছে।’’ জানিয়েছেন, অস্ট্রেলিয়ায় রওনা হওয়ার আগে ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহালি এবং হেড কোচ রবি শাস্ত্রী তাঁর প্রশংসা করেছিলেন।