• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

প্লাজ়াদের বিজয়রথ থামাল অ্যারোজ

Plaza
উইলিস প্লাজ়া

শনিবার বড় অঘটন ঘটে গেল আই লিগে। গোয়া যখন বর্ষশেষের উৎসবে মাতোয়ারা, তখন আই লিগে সেখানকার একমাত্র দলকে হারিয়ে চমকে দিল ইন্ডিয়ান অ্যারোজ।  উইলিস প্লাজ়াদের অপরাজিত থাকার রাস্তায় কাঁটা বিছিয়ে দিল যারা, সেই দলে কোনও বিদেশি ছিল না। সবাই অনূর্ধ্ব-২০ ভারতীয় যুব দলের। শুধু তাই নয়, সন্মুগম বেঙ্কটেসের দলের এ বার এটাই প্রথম জয়। 

কলকাতায় মোহনবাগানকে ২-৪ গোলে হারিয়ে যাওয়ার পরে আর খেলেনি চার্চিল। কাশ্মীরে বরফ পড়ায় বের্নার্দো তাবারেসের দলের খেলা স্থগিত করে ফেডারেশন। তাই প্রায় ষোলো দিন পরে নেমেছিলেন প্লাঁজারা। চার্চিল কোচ আশঙ্কা করেছিলেন, দীর্ঘ সময় দল প্রতিযোগিতামূলক খেলায় না থাকায় সমস্যা হতে পারে। শুধু তাই নয়, আঁটসাঁট অ্যারোজের রক্ষণ যে প্লাজ়াদের সমস্যায় ফেলতে পারে সেটা নিয়েও চিন্তিত ছিলেন তিনি। 

শেষ পর্যন্ত পর্তুগিজ কোচের দু’টো আশঙ্কাই সত্যি হল। বিরতির তিন মিনিট আগে অবশ্য এগিয়ে যায় চার্চিলই। হেডে গোল করেন আবু বকর। কিন্তু বিরতির পরই অ্যারোজের প্রতিশ্রুতিমান ফুটবলারেরা দাপিয়ে খেলতে থাকেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে দলে জোড়া পরিবর্তন করেন চার্চিল কোচ। কিন্তু কোনও লাভ হয়নি। ৭৭ মিনিটে অসাধারণ গোল করে যান মনবীর সিংহ। আমন ছেত্রী হঠাৎ-ই গতি বাড়িয়ে চার্চিল রক্ষণ ভেঙে ঢুকে পড়ে বল বাড়িয়েছিলেন মণবীরকে। ম্যাচ যখন ১-১, সবাই ধরে নিয়েছেন খেলা ড্র হতে চলেছে, তখনই ফের চমক। চার্চিল গোলকিপার জেমস কিথানের ভুলে গোল করে যান স্মরণজিৎ সিংহ। বদলি হিসাবে নেমে দলকে প্রথম জয়ের স্বাদ এনে দেন তিনি। এই জয়ের ফলে ৪ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে আই লিগ টেবলের শীর্ষ স্থানেই থেকে গেল ইস্টবেঙ্গল। এক ম্যাচ বেশি খেলে ৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে পঞ্জাব এফসি। ৪ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে মোহনবাগান। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন