ভারতের বিরুদ্ধে ম্যাচ হেরেই সমস্যা শেষ হয়ে যায়নি অস্ট্রেলিয়ার। এর পরে অ্যাডাম জ়াম্পাকে নিয়ে জলঘোলা শুরু হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। অভিযোগ ওঠে, তিনি হয়তো বল বিকৃত করছিলেন। অভিযোগ ওঠার কারণ একটি ভিডিয়ো। যেখানে দেখা গিয়েছে, বল করার আগে জ়াম্পা বারবার পকেটে হাত ঢোকাচ্ছেন। এবং পরে সেই হাত দিয়ে বলটা পালিশ করছেন। টুইটারে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে, ‘‘জ়াম্পা কি কোনও ভাবে বল বিকৃত করছে? আমরা কি তবে দ্বিতীয় সিরিশ কাগজ কাণ্ড দেখছি?’’

এই প্রশ্ন ওঠার পরে সাংবাদিক বৈঠকে এসে দলের লেগস্পিনারের পাশে দাঁড়িয়েছেন অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। তিনি বলেন, ‘‘আমি ছবি বা ভিডিয়ো দেখিনি। কিন্তু আমি জানি কী হয়েছিল। জ়াম্পা হ্যান্ডওয়ার্মার ব্যবহার করছিল। ওর পকেটে হ্যান্ডওয়ার্মার ছিল। প্রতিটা ম্যাচেই ওর পকেটে ওই হ্যান্ডওয়ার্মার থাকে। আমি ছবিগুলো দেখিনি, তাই এই নিয়ে আর বিশেষ কিছু বলতে পারব না। কিন্তু এটা জানি, ও হ্যান্ডওয়ার্মার ব্যবহার করে।’’

হ্যান্ডওয়ার্মার জিনিসটা হল ছোট ছোট প্যাকেট, যা পকেটে রাখা যায়। হাত ঠান্ডা হয়ে গেলে ওই প্যাকেট মুঠো করে ধরতে হয়। সে ক্ষেত্রে আবার হাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিক হয়ে যায়। অস্ট্রেলীয় অধিনায়কের কথা মতো, সেই প্যাকেটই ছিল জ়াম্পার পকেটে।

ইদানীং অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ভাল খেললেও গত কাল ভারতের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত ব্যর্থ হয়েছেন জ়াম্পা। ছয় ওভারে ৫০ রান দেন তিনি। তবে ২৭ বছর বয়সি লেগস্পিনারের পাশে দাঁড়িয়ে ফিঞ্চ বলেছেন, ‘‘ওর স্পেলের শুরুটা ঠিকঠাক হয়নি। যে কারণে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা মাথায় চেপে বসে। মনে রাখতে হবে, জ়াম্পা ভারতীয়দের মতো বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যানদের বিরুদ্ধে বল করছিল। ওই ধরনের ব্যাটসম্যানরা এক বার ছন্দ পেয়ে গেলে থামানো কঠিন হয়ে যায়। তখন বোলারের পক্ষে ফিরে আসা কঠিন হয়ে যায়।’’

ফিঞ্চ এও মনে করেন, অন্য বোলাররা উইকেট তুলতে না পারায় চাপ তৈরি হয়ে গিয়েছিল জ়াম্পার উপরে। ফিঞ্চের মন্তব্য, ‘‘ম্যাচে নতুন ব্যাটসম্যানদের বিরুদ্ধে বল করার বিশেষ সুযোগ পায়নি জ়াম্পা। ও যখনই বল করতে এসেছে, উল্টো দিকে জমে যাওয়া ব্যাটসম্যান ছিল। ভারতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আর এই ম্যাচের মধ্যে সেটাই তফাত হয়ে গিয়েছিল। ভারতের মাটিতে ওই সিরিজে আমাদের বোলাররা শুরুর দিকে উইকেট তুলতে পেরেছিল। ফলে নতুন ব্যাটসম্যানদের বিরুদ্ধে বল করার সুযোগ পেয়েছিল জ়াম্পা।’’

তবে ফিঞ্চ চান, ভারত ম্যাচটাকে একটা খারাপ দিন ভেবে যেন ভুলে যান জ়াম্পা। অস্ট্রেলীয় অধিনায়কের পরামর্শ, ‘‘ওই দিনটা জ়াম্পার ছিল না। লেগস্পিন এমনিতেই খুব কঠিন শিল্প। আমি তো বলব, সব চেয়ে কঠিন হল লেগস্পিন করা। তাই মাঝে মধ্যে একটা খারাপ দিন গেলে জ়াম্পাকে অবশ্যই মাফ করে দেওয়া যায়।’’ জ়াম্পাকে নিয়ে ফিঞ্চ আরও বলেন, ‘‘দীর্ঘদিন ধরে জ়াম্পা দেশের হয়ে ভাল খেলে আসছে। তাই একটা ম্যাচে ও খারাপ খেলেছে বলে আমি আদৌ চিন্তিত নই।’’ কেন সফল হলেন ভারতীয় বোলাররা? ফিঞ্চ বলেছেন, ‘‘ওরা স্টাম্প টু স্টাম্প, সোজা বল করছিল। ব্যাক অফ দ্য লেংথে বল রাখছিল। বল নীচুও  হচ্ছিল।’’