পরিণত ফিঞ্চে অভিভূত পন্টিং
অস্ট্রেলিয়া দলের সহকারী কোচ রিকি পন্টিং বলে দিচ্ছেন, সেই মুহূর্তই ফিরতে চলেছে।
Aaron Finch

ছবি: এএফপি।

পরিসংখ্যান বলছে, শেষ দুই দশকে পাঁচটি বিশ্বকাপের মঞ্চে চারবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। আবারও কি সেই ছবি ফিরতে চলেছে?

অস্ট্রেলিয়া দলের সহকারী কোচ রিকি পন্টিং বলে দিচ্ছেন, সেই মুহূর্তই ফিরতে চলেছে। এবং তারই সঙ্গে যোগ করছেন, অ্যারন ফিঞ্চ যে ভাবে সামনে থেকে দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন, তাতে অস্ট্রেলিয়ার চ্যাম্পিয়ন না হওয়ার কোনও কারণ নেই। তিনি বলেছেন, ‘‘আট ম্যাচে সাতটা জয়। এর পরেও কি সন্দেহ থাকতে পারে যে, অস্ট্রেলিয়া চ্যাম্পিয়ন হবে না।’’

বরং পন্টিং মনে করছেন, ৩৩ বছরের অধিনায়ক ফিঞ্চ যে ভাবে দলকে পরিচালনা করছেন তাতে অস্ট্রেলিয়ার ট্রফি জয়ের পথ ক্রমশ মসৃণ হয়ে উঠছে। চলতি বিশ্বকাপে ফিঞ্চ এখনও পর্যন্ত আট ম্যাচে ৫০৬ রান করে সর্বোচ্চ স্কোরারদের তালিকার দুই নম্বরে রয়েছেন। রয়েছে দু’টি সেঞ্চুরিও। অস্ট্রেলীয় অধিনায়কের ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি দেখে অভিভূত পন্টিং। তিনি বলেছেন, ‘‘ফিঞ্চি (এই নামেই ফিঞ্চকে ডাকা হয় দলে) এখনও পর্যন্ত দলকে যে ভাবে চালনা করেছে, সেটা আমার কাছে অসাধারণ লেগেছে। অস্ট্রেলিয়া দল আবার ওর নেতৃত্বেই আগের মেজাজে ফিরেছে।’’ সেখানেই না থেমে তিনি আরও বলেছেন, ‘‘বিশেষ করে, ম্যাচের সময় পরিস্থিতি বিচার করে ফিঞ্চি যে ভাবে বোলারদের ব্যবহার করছে, সেটাই কিন্তু খেলার আবহ পাল্টে দিয়েছে। পাশাপাশি নিজে ভাল ফর্মে থাকায় সতীর্থরাও উদ্বুদ্ধ হচ্ছে। আমরা এটাই চেয়েছিলাম।’’

পন্টিংকে আরও বেশি আশাবাদী করে তুলেছে শেষ ম্যাচে নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে অস্ট্রেলিয়ার অনবদ্য জয়। তিনি বলেছেন, ‘‘বড় মঞ্চে বড় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া অতীতে বহুবার জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। মাঝে সাময়িক একটা ছন্দপতন হয়েছিল। কিন্তু সেই পর্বটা শেষ হয়ে গিয়েছে। আমাদের দলের গভীরতা যে কতটা, সেটা নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচেই প্রমাণ হয়ে গিয়েছে। এই বিশ্বকাপটা সমস্ত দিক থেকেই আমাদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এর পরেই রয়েছে অ্যাশেজ সিরিজ। ফলে ক্রিকেটারদের আরও চাঙ্গা থাকতে হবে। বলা যায়, সেই অ্যাশেজ সিরিজের প্রাথমিক একটা মহড়া হয়ে যাচ্ছে এখানেই।’’ অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমে এই মুহূর্তে ফিঞ্চের একটি সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোড়ন পড়ে গিয়েছে। তা হল নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে স্টিভ স্মিথকেও বোলার হিসেবে ব্যবহার করা। পন্টিং বলেছেন, ‘‘স্মিথের টেস্ট অভিষেক হয়েছিল স্পিনার অলরাউন্ডার হিসেবে। নিউজ়িল্যান্ড ম্যাচের আগে ফিঞ্চ আমাকে জানিয়েছিল, ও স্মিথকে ওই ম্যাচে স্পিনার হিসেবে ব্যবহার করতে চায়। আমি ওর মতামতে সম্মতি দিয়েছিলাম।’’

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।

ম্যাচের
Live
স্কোর