ওয়ান ডে ক্রিকেটে সব চেয়ে বেশি ডাবল সেঞ্চুরি এসেছে তাঁরই ব্যাট থেকে। তিনটি। সেই রোহিত শর্মা এ বার আর একটি ডাবল সেঞ্চুরির মুখে দাঁড়িয়ে। আজ, বৃহস্পতিবার, হ্যামিল্টনে নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে দু’শোতম ওয়ান ডে খেলতে নামবেন রোহিত। বিরাট কোহালির অনুপস্থিতিতে যে ম্যাচে দলকে নেতৃত্ব দেবেন তিনিই।

অস্ট্রেলিয়ার পরে নিউজ়িল্যান্ডের মাটিতেও ওয়ান ডে সিরিজ জেতা হয়ে গিয়েছে ভারতের। নিয়মরক্ষার এই ম্যাচে ভারতীয় দলে কয়েকটি পরিবর্তন হলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। শুভমন গিলকে এই ম্যাচে খেলানোর একটা সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তৃতীয় ম্যাচের পরেই কোহালির মুখে শোনা গিয়েছিল শুভমনের প্রশংসা। ভারত অধিনায়ক এও বলেছিলেন, উনিশ বছর বয়সে তিনিও শুভমনের মতো এত প্রতিভাবান ছিলেন না। এই ম্যাচে বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে ফর্মে থাকা মহম্মদ শামিকেও। তিনটের মধ্যে দু’টোতে ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়েছিলেন শামি। তিনি না খেললে দলে আসতে পারেন খলিল আহমেদ বা মহম্মদ সিরাজ।  

ভারত যে শেষ দুটো ওয়ান ডে ম্যাচে তরুণদের পরীক্ষা করে দেখতে পারে, তার ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে দলের ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধরের কাছ থেকে। বুধবার সাংবাদিক বৈঠকে এসে তিনি বলে গেলেন, ‘‘জেতার অভ্যাসটা ধরে রাখা জরুরি। আমরা অবশ্যই সব ম্যাচ জিততে চাই। কোনও রকম ঢিলেমি দেওয়ার প্রশ্নই নেই। কিন্তু পাশাপাশি দলের তরুণ ক্রিকেটারদেরও দেখে নেওয়া জরুরি। বিশ্বকাপের আগে আমরা আর সাতটা ওয়ান ডে ম্যাচ পাচ্ছি। এরই মধ্যে রিজার্ভ বেঞ্চের ক্রিকেটারদের ম্যাচ খেলার সুযোগ দিতে হবে।’’ তিনি এও বলেন, ‘‘বিশ্বকাপে আমরা এমন কোনও পরিস্থিতিতে পড়তে চাই না, যেখানে দেখা গেল, রিজার্ভ বেঞ্চের ক্রিকেটারেরা কেউ ম্যাচ প্র্যাক্টিসের অভাবে ভুগছে, অথচ ওদের মাঠে নামাতে হবে। এ রকম পরিস্থিতি হতেই পারে। আমি নিশ্চিত, টিম ম্যানেজমেন্ট ব্যাপারটা 

নিয়ে ভাবছে।’’  

শ্রীধর এও মনে করেন, ইংল্যান্ডের মতো পরিবেশ একমাত্র নিউজ়িল্যান্ডেই কিছুটা পাওয়া যেতে পারে। তাই শেষ দুটো ম্যাচে রিজার্ভ বেঞ্চের ক্রিকেটারদের সুযোগ দেওয়ার প্রয়োজন আছে। শ্রীধর বলছিলেন, ‘‘জুনে ইংল্যান্ডে যে রকম পরিবেশ থাকার কথা, তার কাছাকাছি পরিবেশ নিউজ়িল্যান্ডেই পাওয়া যেতে পারে। এখানকার পরিবেশে খেললে ক্রিকেটারেরা তাও ইংল্যান্ডের আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাবে।’’

অনেকেই মনে করেছিলেন, অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে বেশি লড়াই হবে নিউজ়িল্যান্ডে। কিন্তু বাস্তবে দেখা গিয়েছে, কোনও লড়াই করতে পারেনি কেন উইলিয়ামসনের দল। নিউজ়িল্যান্ডের বাঁ হাতি স্পিনার মিচেল স্যান্টনার এ দিন বলেন, ‘‘আমাদের পরিকল্পনা খুব খারাপ কিছু ছিল না। কিন্তু সেই পরিকল্পনা আমরা কাজে লাগাতে পারিনি। শুরুর দিকে বা ভারতের মাঝের সারির ব্যাটসম্যানদের উপরে আমরা চাপই সৃষ্টি করতে পারিনি। যার ফল ভুগতে হচ্ছে।’’

নিউজ়িল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরাও সামলাতে পারেননি ভারতীয় বোলারদের। স্যান্টনার বলেছেন, ‘‘আমাদের বড় জুটি গড়তে হবে। যেটা রস টেলর এবং টম লাথাম তৃতীয় ওয়ান ডে-তে করেছিল। বাকি ব্যাটসম্যানদেরও সেই কাজটা 

করতে হবে।’’