কাতার বিশ্বকাপে খেলার লক্ষ্যে সুনীল ছেত্রীদের অভিযান বৃহস্পতিবার শুরু হচ্ছে গুয়াহাটির সরুসজাই স্টেডিয়ামে। প্রতিপক্ষ ওমান। প্রাক-বিশ্বকাপে সেই ম্যাচের ৪৮ ঘণ্টা আগেই ভারতীয় কোচ ইগর স্তিমাচ এগিয়ে রাখছেন প্রতিপক্ষকেই। তাঁর কথায়, ‘‘ম্যাচে আমাদের চেয়ে এগিয়ে আছে ওমান। ওরাই ফেভারিট। তবে আমরাও অঘটন ঘটাতে পারি, এই আশা রয়েছে।’’

গত মে মাসে ভারতীয় দলের দায়িত্বে এসেছেন ক্রোয়েশিয়া থেকে আসা কোচ স্তিমাচ। ফিফা অনুমোদিত প্রতিযোগিতায় এর আগে কখনও ওমানকে হারাতে পারেনি ভারত। বৃহস্পতিবার গুয়াহাটিতে স্তিমাচের দল কি সেই ওমানকে হারাতে পারবে? জানতে চাইলে ভারতীয় কোচ বলেন, ‘‘বাস্তবিক ভাবে, আমাদের গ্রুপে শক্তিশালী দল কাতার ও ওমান। ফিফা অনুমোদিত কোনও প্রতিযোগিতায় ভারত এ পর্যন্ত এই দুই দেশকেই হারাতে পারেনি। কাজেই বৃহস্পতিবার ওমানের বিরুদ্ধে ম্যাচ সহজ হবে না। তবে গুয়াহাটির মাঠে ম্যাচ জেতার জন্য নিজেদের উজাড় করে দেবে ভারতীয় দল।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘প্রাক-বিশ্বকাপে গ্রুপের এই খেলায় ফলাফল খুব গুরুত্বপূর্ণ। তবে গত কয়েক মাস কঠোর প্রস্তুতি নিয়েছি আমরা। তাই এই মুহূর্তে ওমানের মোকাবিলা করার জন্য তৈরি রয়েছে ভারতীয় দল।’’

বছরের শুরুতে এশিয়ান কাপের আগে গত ডিসেম্বরে ফ্রেন্ডলি ম্যাচে এই দুই দেশের খেলা ড্র হয়েছিল। সে প্রসঙ্গ উঠলে ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপে তৃতীয় হওয়া ক্রোয়েশিয়া দলের ডিফেন্ডার বর্তমান ভারতীয় কোচ বলেন, ‘‘আমার কথার ভুল ব্যাখ্যা করবেন না। তবে মনে হয় না ওই ফ্রেন্ডলি ম্যাচের কোনও গুরুত্ব এখন রয়েছে।’’

কাতার, ওমান ও ভারত ছাড়াও গ্রুপ ‘এ’-র বাকি দুই দল হল আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ। এই ম্যাচের পরেই ১০ সেপ্টেম্বর দোহায় এশীয় চ্যাম্পিয়ন কাতারের বিরুদ্ধে খেলবে স্তিমাচের ভারত। প্রাক-বিশ্বকাপের এই পর্ব চলবে আগামী বছর জুন পর্যন্ত। প্রত্যেক গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স হওয়া চার সেরা দল যাবে পরের রাউন্ডে। 

ম্যাচ উপলক্ষ্যে ইতিমধ্যেই গুয়াহাটি পৌঁছে গিয়েছে দু’দল। স্তিমাচের রণনীতি, রক্ষণ থেকে খেলা তৈরি করে আক্রমণে এগোনো। যা পছন্দ ভারতীয় ফুটবলারদেরও। দলের অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার সন্দেশ ঝিঙ্গন বলছেন, ‘‘বল দখলে রেখে নতুন কোনও সিস্টেম দ্রুত রপ্ত করা যাবে না। তাই কোচ যে পদ্ধতিতে দলকে খেলাতে চাইছেন, তা দলের সকলের পছন্দ।’’