আইপিএলে তাঁর অন্যতম সেরা ইনিংস খেলেও চেন্নাই সুপার কিংসকে জয় এনে দিতে পারেননি মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। কিন্তু রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স অধিনায়ক বিরাট কোহালি স্বীকার করে নিয়েছেন, ধোনির ইনিংস তাঁদের ভীষণ ভাবে ভয় পাইয়ে দিয়েছিল। 

সিএসকে-র বিরুদ্ধে চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে এক রানে ম্যাচ জেতার পরে কোহালিকে প্রশ্ন করা হয়, এই মুহূর্তে আপনার ঠিক কী মনে হচ্ছে? জবাবে আরসিবি অধিনায়ক বলেন, ‘‘আমরা ১৯ ওভার পর্যন্ত দারুণ বল করেছিলাম। শেষ বলে ও রকম একটা রান আউট হবে, তা ভাবতেই পারিনি। এত কম ব্যবধানে ম্যাচ জেতার একটা আলাদা মজা আছে। ধোনি যে কাজটা করতে ভালবাসে, সেটাই করেছে। আমাদের ভীষণ ভাবে ভয় পাইয়ে দিয়েছিল।’’

তবে কোহালি এও মনে করেন, দু’দলের মধ্যে পার্থক্য হয়ে গিয়েছিল প্রথম ছয় ওভারে। আইপিএল ওয়েবসাইটে পোস্ট করা এক ভিডিয়োয় আরসিবি অধিনায়কের মন্তব্য, ‘‘শেষ ওভারে যা খুশি হতে পারত, সেটা আমরা সবাই দেখেছি। তবে আমি বলব, ম্যাচে তফাত গড়ে দিয়েছে প্রথম ছয় ওভার আর আমার পাশে দাঁড়ানো এই লোকটা।’’ এই বলে কোহালি হাত রাখলেন তাঁর পাশে দাঁড়ানো ক্রিকেটারের কাঁধে। তিনি— ডেল স্টেন। কোহালি আরও বলেন, ‘‘শেষ চারটের মধ্যে তিনটে ম্যাচ আমরা জিতেছি। নয় বছর পরে আরসিবি-তে ফিরে স্টেন শেষ দুটো ম্যাচে বড় তফাত গড়ে দিল।’’ গত কাল চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে শুরুতেই দুটো উইকেট তুলে নেন স্টেন। দুরন্ত এক ইয়র্কারে শূন্য রানে ফিরিয়ে দেন সুরেশ রায়নাকে। হ্যাটট্রিকের সামনেও চলে এসেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার এই ফাস্ট বোলার। 

শেষ বার আরসিবির জার্সিতে স্টেনকে দেখা গিয়েছিল ২০১০ সালে। তার আগে স্টেনের সঙ্গে ২০০৯ সালের একটি ছবি দেখিয়ে কোহালি ওই ভিডিয়োয় বলেন, ‘‘কিছু দিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ১০ বছরের চ্যালেঞ্জ খুব হইচই ফেলেছিল। আমিও ১০ বছর আগে স্টেনের সঙ্গে একটা ছবি দেখাচ্ছি। স্টেন বদলায়নি, কিন্তু আমি বদলে গিয়েছি।’’ পাশে দাঁড়ানো স্টেন বলতে থাকেন, ‘‘এই ছবিটা দেখে অনেক পুরনো কথা মনে পড়ে গেল। বিরাট এখন কোথায় এসে দাঁড়িয়েছে। বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার। ক্রিকেট বিশ্বে ঝড় তুলে দিয়েছে। মনে আছে, বিরাটের যখন ১৮ বছর বয়স, তখন ওর সঙ্গে দেখা হয়েছিল। আর এখন ও ভারতীয় দলের অধিনায়ক।’’

দশ বছর আগের ওই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, বিপক্ষের উইকেট পড়ার পরে স্টেনের কোলে উঠে উৎসব করছেন বছর আঠারোর কোহালি। গত কালও চিন্নাস্বামীতে একই দৃশ্য দেখা যায়। দক্ষিণ আফ্রিকার পেসারের ইয়র্কারে রায়নার স্টাম্প ছিটকে যেতেই স্টেনের কোলে উঠে পড়েন কোহালি। যে ছবি দেখিয়ে আরসিবি অধিনায়ক আরও বলেন, ‘‘নয় বছর আগে স্টেন যখন আরসিবি ছেড়ে চলে যায়, তখন ভাবতেই পারিনি এ ভাবে ওর সঙ্গে উৎসব করার আবার সুযোগ পাব।’’এর পরে স্টেনের দিকে ঘুরে কোহালি প্রশ্ন করেন, ‘‘আরসিবি-তে ফিরে কেমন লাগছে?’’ একটু হেসে স্টেনের জবাব, ‘‘অবশ্যই দারুণ লাগছে। সব চেয়ে ভাল লাগছে জয়ী দলের অংশ হতে পেরে। চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে দারুণ একটা জয় 

পেলাম আমরা।’’ 

শেষ ওভারে ২৬ রান করতে হবে, এই অবস্থায় তিনটে ছয় এবং একটা চারের সাহায্যে ধোনি অঙ্কটা শেষ বলে দু’রানে নামিয়ে এনেছিলেন। শেষ বলে পার্থিব পটেল মাথা ঠান্ডা রেখে রান আউট করে দেন শার্দূল ঠাকুরকে। ম্যাচের পরে আরসিবি-র মইন আলি বলছিলেন, ‘‘অবিশ্বাস্য। ভাবতে পারিনি এই ভাবে ম্যাচটা 

জিততে পারব।’’