আইপিএলের মাঝপথে তারকা অপসারণ। শনিবার মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে ম্যাচ শুরুর এক ঘণ্টা আগে রাজস্থান রয়্যালস জানিয়ে দিল, অজিঙ্ক রাহানেকে সরিয়ে অধিনায়কত্ব তুলে দেওয়া হল অস্ট্রেলিয়ার স্টিভ স্মিথকে।

যে সিদ্ধান্তে নতুন করে আলোড়ন পড়ে যায় ক্রিকেটমহলে। যদিও শনিবার নতুন অধিনায়কের হাত ধরে জয়ে ফিরেছে রাজস্থান, কিন্তু রাহানের মতো ক্রিকেটারকে এ ভাবে আইপিএলের মাঝপথে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া কতটা যুক্তিযুক্ত, তা নিয়ে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে।

শনিবার সাংবাদিক সম্মেলনে তা নিয়ে প্রশ্ন উড়ে আসে স্মিথের দিকেও। রয়্যালসের নতুন অধিনায়ক বলেছেন, ‘‘এই ধরনের ব্যাপারগুলো নিয়ে কিছু বলা মোটেও সহজ নয়। তবে রাহানে খুবই ভাল ছেলে। ও আজও যে ভাবে ব্যাটিং শুরু করেছিল, সেটা আমাদের জয়ের পথ দেখিয়ে দেয়।’’ সেখানেই না থেমে স্মিথ আরও বলেছেন, ‘‘এটা ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত। আমাকে তা জানিয়ে দেওয়া হয়। সত্যি বলতে, আমিও চমকে গিয়েছিলাম।’’

শনিবার রাজস্থান রয়্যালস যে বিবৃতি প্রকাশ করেছে, তাতে বলা হয়েছে, ‘‘আইপিএলে আগামী ম্যাচগুলিতে রাজস্থান রয়্যালস দলের নেতৃত্ব দেবেন স্টিভ স্মিথ। গত বছরে অধিনায়ক হিসেবে দারুণ কাজ করেছিলেন অজিঙ্ক রাহানে। দল প্লে অফেও খেলেছিল। কিন্তু এ বার ফ্র্যাঞ্চাইজি দলের আধিকারিকরা মনে করছেন, মানসিকতার পরিবর্তন প্রয়োজন। যাতে দল আবার আগের মেজাজে ফিরে আসতে পারে।’’

অধিনায়ক রাহানের অবদান মেনে নিয়েছেন নতুন অধিনায়কও। স্মিথ বলেছেন, ‘‘গত দেড় বছরে অধিনায়ক হিসেবে রাহানে দারুণ কাজ করেছে। আমি ওর সঙ্গে কথাও বলেছি।’’ আরও বলেছেন, ‘‘অধিনায়ক হিসেবে প্রথম ম্যাচে জয় পাওয়া ভাগ্যের।’’

এর আগে আইপিএলের মাঝপথে নেতৃত্ব পরিবর্তনের ঘটনা নতুন নয়। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় থেকে রাহুল দ্রাবিড়, হরভজন সিংহ থেকে রোহিত শর্মা, গৌতম গম্ভীর—তালিকা বেশ দীর্ঘ। সেই অধিনায়ক ছাঁটাইয়ের তালিকায় শনিবার যুক্ত হয়ে গেল রাহানের নামও।

শনিবার প্রকাশিত বিবৃতিতে স্মিথের প্রশংসা করে বলা হয়েছে, ‘‘স্মিথ বরাবরই দল সংক্রান্ত বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যাপারে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ ছিলেন। ফলে তাঁকেই দায়িত্ব দেওয়া হল। তবে রাহানে দলের অন্যতম সেরা মুখ হিসেবেই থাকবেন। দল মনে করছে, পরিবর্তনে দলের উপকার হবে।’’ 

ঘটনা হল, বিশ্বকাপের জন্য মে মাসের শুরুতে স্মিথ দেশে ফিরবেন। তাঁকে তেমনই নির্দেশ দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড। থাকবেন না আরও দুই বিদেশি তারকা, ইংল্যান্ডের বেন স্টোকস এবং জস বাটলারও। সে ক্ষেত্রে অজিঙ্ক রাহানেকে আবারও কি ফিরিয়ে আনা হবে নেতৃত্বে? উত্তর এখনও পর্যন্ত অজানা।