ম্যাঞ্চেস্টার সিটি ৯    •    বার্টন ০
 

সারা ম্যাচে পাসিং ৮১৭টি। প্রতিপক্ষের গোল লক্ষ্য করে মোট শট ১৪টি। যার মধ্যে গোল নয়টি! বুধবার এতিহাদ স্টেডিয়াম সাক্ষী রইল ম্যাঞ্চেস্টার সিটির ভয়ঙ্কর গোল বিস্ফোরণের।

এবং সেখানেই শেষ নয়। ধারে এবং ভারে অনেক পিছিয়ে থাকা বার্টন অ্যালবিয়নকে ধরাশায়ী করে দিয়ে হুঙ্কার দিয়ে উঠলেন পেপ গুয়ার্দিওলাও। ম্যান সিটি ম্যানেজার জানিয়ে দিলেন, তাঁর দলের এই বিধ্বংসী পারফরম্যান্সের লক্ষ্য ছিল একটাই। বাকি দলগুলি যেন তাঁর দলকে সমীহ করে। গুয়ার্দিওলার কথায়, ‘‘মাঠে নেমে যদি কোনও দল আক্রমণের কথা ভুলে যায়, তা হলে কোনও ভাবেই প্রতিপক্ষের থেকে সমীহ আদায় করা যাবে না। ফুটবলারদের বলেই দিয়েছিলাম, যত দূর সম্ভব বেশি গোল করার চেষ্টা করতে হবে। প্রতিপক্ষ যেমনই হোক, নিষ্ঠুর ফুটবল খেলতে হবে।’’

লিগ কাপের সেমিফাইনালে দল। তার সঙ্গে ম্যান সিটি শিবিরের বড় প্রাপ্তি ব্রাজিলীয় স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসুসের হ্যাটট্রিক-সহ চার গোল। গুয়ার্দিওলা বলেছেন, ‘‘ফুটবল এমনই এক খেলা যেখানে প্রতি মুহূর্তে কী করতে চাইছি সেটা বাকিদের কাছে স্পষ্ট করে দেওয়ার সঙ্গেই তাদের থেকে সমীহ আদায় করে নেওয়ার দায়িত্বও থেকে যায়। আমার দল সেটাই করেছে।’’ যদিও ম্যান সিটি ম্যানেজার এ-ও মেনে নিয়েছেন, ইপিএলের এবং  লিগ কাপের দলগুলির মধ্যে গুণগত মানের বিস্তর ফারাক রয়েছে। ‘‘কিন্তু আমাদের লক্ষ্য ছিল সহজাত ছন্দকে ধরে রাখা। চাই প্রচুর গোল,’’ বলেছেন পেপ।

গুয়ার্দিওলার মতো তৃপ্ত বুধবারের জয়ের নায়ক জেসুস। চলতি মরসুমে যাঁর এই নিয়ে দশটি গোল হয়ে গেল। বারো গোল সের্খিও আগুয়েরোর। ২১ বছরের ব্রাজিলীয় তারকা বলেছেন, ‘‘আগুয়েরোকে আমি শ্রদ্ধা করি। ওঁর ফুটবলকে অনুকরণ করার চেষ্টা করি।’’ আরও বলেছেন, ‘‘এই দলে আগুয়েরোর মতোই নিজেকে একটা উচ্চতায় প্রতিষ্ঠা করার স্বপ্ন দেখি। তাই যখনই খেলার সুযোগ পাই, নিজেকে প্রমাণ করতে চাই। আশা করি, চার গোল করতে পেরে কোচকে খুশি করতে পেরেছি।’’

গোলের সেঞ্চুরি র‌্যামোসের: বুধবার কোপা দেল রে ট্রফিতে রিয়াল মাদ্রিদ ৩-০ গোলে হারিয়েছে লেগানেসকে। রিয়াল মাদ্রিদের জার্সিতে নিজের একশোতম গোল করে ফেললেন অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার সের্খিও র‌্যামোস। ম্যাচের পর র‌্যামোস বলেছেন, ‘‘এটা আমার কাছে অত্যন্ত গর্বের। এই ক্লাবের হয়ে যে কোনও ম্যাচে নিজেকে উজাড় করে দিতে চাই আমি।’’ দলের পারফরম্যান্স নিয়ে বলেছেন, ‘‘আরও নিখুঁত খেলতে হবে আমাদের।’’