ভারতীয় দলের তারকা পেসার মহম্মদ শামির বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ আনলেন তাঁর স্ত্রী হাসিন জাহান। একাধিক নারীর সঙ্গে শামি বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়েছেন বলে দাবি করেছেন হাসিন।

সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খুলে হাসিন এমন কথাও বলেছেন যে, শামি নাকি পাকিস্তানের এক মহিলাকে বিয়ে করে তাঁর সঙ্গে দুবাইয়ে একান্তে সময় কাটিয়েছেন। আরও অভিযোগ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফিরে শামি তাঁকে শারীরিক ভাবে নির্যাতন করেছেন এবং শামির পরিবার থেকে তাঁকে হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি খুনেরও চেষ্টা হচ্ছে। শামি যদিও বুধবার টুইট করে সমস্ত অভিযোগই অস্বীকার করেছেন।

তবে বিতর্কের জেরে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের চুক্তি থেকে আপাতত বাইরে রাখা হয়েছে শামি-কে। অভিযোগ তুলে নিলে বা ভিত্তিহীন হলে চুক্তিতে তাঁকে ফিরিয়ে নেওয়া হবে।

শামির স্ত্রী বুধবারই লালবাজারে গিয়ে পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের সঙ্গে দেখা করেন বলে সূত্রের খবর। পুলিশের তরফে এই সাক্ষাৎ নিয়ে অবশ্য কিছু জানানো হয়নি। তবে লালবাজারে দাঁড়িয়েই সংবাদমাধ্যমের সামনে খোলাখুলি অভিযোগ জানান হাসিন। দাবি করেন, শামির আচরণের প্রতিবাদ করায় তাঁর উপর অত্যাচার চালানো হচ্ছে। 

আরও পড়ুন: বিতর্ক এড়াতে বাইরে শামি

ঘটনার শুরু মঙ্গলবার। যখন হাসিন ফেসবুকে নাগপুরের এক মহিলার ছবি পোস্ট করে তাঁর সঙ্গে কিছু আপত্তিজনক মোবাইল বার্তা আদানপ্রদান তুলে দিয়ে দাবি করেন যে, এই কথোপকথন তিনি শামির মোবাইল থেকে পেয়েছেন। ফেসবুকে হাসিন লেখেন, ‘অনেক সহ্য করেছি। আর নয়।’ বুধবার যদিও ফেসবুক অ্যাকাউন্টটিই উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

স্ত্রীর অভিযোগ ছড়িয়ে পড়ার পরে শামি সমস্ত ঘটনা অস্বীকার করে টুইট করেন বুধবার সকালেই। লেখেন, ‘যা চাউর করা হচ্ছে, তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমাকে এবং আমার ক্রিকেট জীবনকে নষ্ট করার চক্রান্ত’। পরে একটি চ্যানেলকেও শামি বলেন, হাসিনের সঙ্গে কথা বলতে না পারলেও শ্বশুরের সঙ্গে কথা হয়েছে। আর তিনি হাসিনের সঙ্গেই জীবন কাটাতে চান।

তবে হাসিনের দাবি, একাধিক মহিলার সঙ্গে শামির মোবাইলে আপত্তিজনক বার্তা আদানপ্রদানের প্রমাণ তাঁর কাছে রয়েছে। বলেছেন, ‘‘ও যখন যা করতে বলেছে, আমি করেছি। তার পরেও অত্যাচার থামেনি। ওকে আদালতে নিয়ে যাওয়ার মতো সমস্ত প্রমাণ রয়েছে আমার কাছে।’’