অনুশীলনে সনি নর্দে কর্নার তোলার সময় সঠিক জায়গায় ছিলেন না আজহারউদ্দিন মল্লিক। যা দেখে মোহনবাগানের নবনিযুক্ত কোচ খালিদ জামিল হঠাৎ এমন কড়া হাঁক পাড়লেন যে শুক্রবার সকালে চমকে উঠল গোটা মোহনবাগান মাঠ। খালিদ যদিও নির্বিকার। আজহার সঠিক জায়গায় থাকলে কী ভাবে কর্নার থেকে গোলের রাস্তা খুলতে পারে, তা দেখিয়ে তবে ক্ষান্ত হলেন।

সবুজ-মেরুন শিবিরের নতুন কোচ সনি-আজহার-কিংসলেদের মাথায় ইতিমধ্যেই ঢুকিয়ে দিয়েছেন, রক্ষণে যেমন কোনও ঝুঁকি নেওয়া যাবে না, তেমনই মাঠে নেমে অর্ধেক সুযোগকেও কাজে লাগাতে হবে। সেই মতোই আই লিগে নেরোকা ম্যাচের আগের সকালে অনুশীলন সারল মোহনবাগান। যে মহড়া সেরে উঠে সাংবাদিক সম্মেলনে খালিদ বলে গেলেন, ‘‘মিনার্ভার বিরুদ্ধে গত ম্যাচে জিতে যে আত্মবিশ্বাস পাওয়া গিয়েছে, সেটা কাজে লাগাতে হবে। পাশাপাশি রক্ষণটাও পোক্ত হতে হবে।’’ 

আগের কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তীর জমানায় ইম্ফলে গিয়ে নেরোকার কাছে ১-২ হেরে এসেছিল মোহনবাগান। যে ম্যাচে সেট-পিসে জোড়া গোল করে নেরোকাকে জয় এনে দিয়েছিলেন সবুজ-মেরুন শিবিরের প্রাক্তনী এদুয়ার্দো ফেরেইরা এবং অ্যারিন উইলিয়ামস। নানা বৈচিত্রের সেট-পিস লুকোনো অস্ত্র কাতসুমির। এ বারও কি তার পুনরাবৃত্তি হবে? নাকি শনিবার বদলার ম্যাচ মোহনবাগানের?

প্রশ্ন শুনেই নেরোকার স্প্যানিশ কোচ মানুয়েল রেতামেরো ফ্রেইল বলেন, ‘‘প্রথম পর্বের ম্যাচে মোহনবাগানের বিরুদ্ধে দু’টো গোলই করেছিলাম সেটপিসে। ওটা আমাদের অস্ত্র। বিপক্ষে যে দলই থাকুক আমরা সেট-পিসে গোলের চেষ্টা করবই।’’

মোহনবাগান কোচ বলছেন, ‘‘পুরনো ম্যাচ নিয়ে ভাবছি না। ছেলেদের বলেছি, মাঠে নেমে নিজেদের একশো শতাংশ দিতে হবে। জয় দরকার ছিল। সেটা গত ম্যাচে পাওয়া গিয়েছে। এ বার সেই জয়ের ধারা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পালা।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘নেরোকার বিদেশিরা আই লিগে চমৎকার খেলছেন। ওদের খেলা দেখেছি। সেট-পিসও। আমরা আজ সেগুলো সামলানোর অনুশীলন করলাম।’’ 

১১ ম্যাচে মণিপুরের নেরোকার পয়েন্ট ২১। টানা ছয় ম্যাচ অপরাজিত রয়েছে গত বছর আই লিগের রানার্স আপ দলটি। যার মধ্যে পাঁচটিই জিতেছে তারা। আই লিগ টেবলে এই মুহূর্তে কাতসুমি ইউসা, সুভাষ, সিংহদের দল রয়েছে চার নম্বরে। শনিবার যুবভারতীতে মোহনবাগানকে হারাতে পারলেই মণিপুরের দলটি ধরে ফেলবে প্রথম স্থানে থাকা চেন্নাই সিটি এফসিকে। এ বারও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দৌড়ে থাকলেও নেরোকা কোচ মোহনবাগানকে সমীহ করে বলছেন, ‘‘মোহনবাগান ভারতের অন্যতম সেরা ক্লাব। কোচ বদলে ওরা আরও শক্তিশালী হয়েছে। কঠিন লড়াই হবে মাঠে।’’ 

অন্য দিকে, নেরোকার থেকে এক ম্যাচ বেশি খেলে লিগ তালিকায় ছয় নম্বরে থাকা মোহনবাগানের পয়েন্ট ১৮। লিগে ভাল জায়গায় থাকতে হলে, এই ম্যাচ জিততেই হবে মোহনবাগানকে। তাই দুই দলের কাছেই গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচ।

দু’বছর আগের আই লিগ চ্যাম্পিয়ন কোচ খালিদ এবার অর্ধেক আই লিগ কোচিং না করালেও ঘরে বসে সব দলের খেলা মন দিয়ে দেখেছেন। তাই তিনি জানেন নেরোকার রক্ষণে ছোটখাটো ফাঁকফোকর থাকলেও, তাদের দুই উইঙ্গার কাতসুমি ও সুভাষ সিংহ দুই প্রান্ত থেকে গতিকে কাজে লাগিয়ে বিপক্ষকে নাস্তানাবুদ করেন। রক্ষণ ও গোলকিপারের মাঝে ফাঁকা জায়গাটা কাজে লাগান এই দু’জনে। তাই মোহনবাগান অনুশীলনে এ দিন চার ডিফেন্ডারের একটু আগে ইউতা কিনোয়াকিকে রেখে রক্ষণ পোক্ত করার অনুশীলন হল। কখনও ইউতার সঙ্গে সেই মহড়ায় যোগ দিলেন মেহতাব হোসেনও। একই সঙ্গে দ্রুত প্রতি আক্রমণে গোল পাওয়ার জন্য সনি, আজহার, ডিকা, হেনরি কিসেক্কাদের নিয়েও এক প্রস্ত তালিম দিলেন আই লিগ জয়ী মুম্বইকর কোচ। 

খালিদ বলছেন, ‘‘বিপক্ষে এদুয়ার্দো, কাতসুমিদের মতো ফুটবলার রয়েছে। এই মুহূর্তে আই লিগে ভালই খেলছে নেরোকা। তবে আমাদের এ সব না ভেবে ইতিবাচক মেজাজে খেলতে হবে জেতার জন্য।’’ 

শনিবার আই লিগে: মোহনবাগান বনাম নেরোকা এফসি (যুবভারতী, দুপুর ২ টো থেকে)। সরাসরি স্টার স্পোর্টস থ্রি চ্যানেলে।