চিন ওপেনে দিনটা মিশ্র গেল ভারতীয় ব্যাডমিন্টন প্রেমীদের জন্য। একই দিনে ছিটকে গেলেন পি ভি সিন্ধু এবং ভারতের ডাবলস ও মিক্সড ডাবলস জুটি। প্রথম রাউন্ডে লন্ডন অলিম্পিক্স চ্যাম্পিয়ন লি জুয়েরুইকে হারিয়ে অভিযান শুরু করা সিন্ধু প্রি-কোয়ার্টারে ৫৮ মিনিট হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করার পরে ছিটকে যান তাইল্যান্ডের পর্নপাউই চোচুওংয়ের বিরুদ্ধে। প্রথম গেমে জিতেও তার সুবিধে নিতে পারেননি সিন্ধু। তিনি হারেন ২১-১২, ১৩-২১, ১৯-২১ ফলে। তবে জিতেছেন, বি সাই প্রণীত। তিনি ২১-১৯, ২১-১৯ ফলে হারান চিনের লু গুয়াং জ়ু-কে। কোয়ার্টার ফাইনালে তাঁর প্রতিপক্ষ প্রতিযোগিতার সপ্তম বাছাই ইন্দোনেশিয়ার অ্যান্থনি সিনিসুকা জিন্টিং। ছিটকে গিয়েছেন পারুপল্লী কাশ্যপও।

ডাবলস বিশেষজ্ঞ সাত্ত্বিকসাইরাজ রানকিরেড্ডিও এ দিন দুটি বিভাগে হারেন। প্রথমে পুরুষদের ডাবলসে চিরাগ শেট্টির সঙ্গে। পরে অশ্বিনী পোনাপ্পার সঙ্গে মিক্সড ডাবলসে। পুরুষদের ডাবলসে ১৫ নম্বর বাছাই সাত্ত্বিকদের ছিটকে দেন চতুর্থ বাছাই জাপানের তাকেশি কামুরা এবং কেইগো সোনোদা জুটি। ফল ১৯-২১, ৮-২১। দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচটি চলে ৩৩ মিনিট। এই নিয়ে চলতি মরসুমে দ্বিতীয় বার জাপানি জুটির বিরুদ্ধে হারলেন সাত্ত্বিকরা। এর আগে জুলাইয়ে জাপান ওপেনেও তাঁরা এই জুটির বিরুদ্ধে হেরেছিলেন। এর পরে মিক্সড ডাবলসে অশ্বিনীর সঙ্গে তিন গেমের লড়াইয়ে সাত্ত্বিকরা হার মানতে বাধ্য হন জাপানের ইউকি কানেকো এবং মিসাকি মাতসুমোতোর বিরুদ্ধে। ফল ১১-২১, ২১-১৬, ১২-২১। 

একই দিনে পুল্লেলা গোপীচন্দের আশা আগামী বছর টোকিয়ো অলিম্পিক্সে সোনা জিতবেন তাঁর ছাত্রী। তবে জাতীয় ব্যাডমিন্টন কোচ পাশাপাশি এটাও মনে করেন, বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জেতার পরে প্রতিপক্ষদের নজর থাকবে এখন সিন্ধুর উপরে। সংবাদ সংস্থাকে একটি সাক্ষাৎকারে গোপীচন্দ বলেছেন, ‘‘আমার মনে হয় এটা বলাই যায়, অলিম্পিক্স সোনা জয়ের দৌড়ে সিন্ধুও রয়েছে। তবে তার সঙ্গে বলতে হবে, লড়াইটা খুব কঠিন হবে ওর জন্য। কারণ, সিন্ধু এখন প্রতিপক্ষদের নজরে থাকবে। ওর বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বীরা ছক কষে নামবে।’’ তিনি আরও বলেছেন, ‘‘তাই সিন্ধুকে আরও প্রস্তুতি নিয়ে নামতে হবে। নিজেকে আরও উন্নত করতে হবে। নতুন নতুন অস্ত্র নিয়ে ভাবতে হবে।’’

বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে চিনের চেন উফেইকে স্ট্রেট গেমে উড়িয়ে দেওয়ার পরে ফাইনালে প্রাক্তন বিশ্বসেরা ওকুহারাকে দাঁড়াতে দেননি সিন্ধু। অলিম্পিক্সে অবশ্য সিন্ধুর সামনে লড়াইটা সোজা হবে না বলে মনে করেন গোপীচন্দ। তিনি বলেছেন, ‘‘ক্যারোলিনা মারিন (রিয়ো অলিম্পিক্স চ্যাম্পিয়ন), তাই জু ইং, রাতচানক (ইন্তানন), চিনের প্রতিদ্বন্দ্বীরা রয়েছে। আমার মনে হয় বেশ ভালোই লড়াই হবে অলিম্পিক্সে। পাশাপাশি এটাও বলতে হচ্ছে, সিন্ধুর সামনে সুযোগ রয়েছে। আশা করি আগের বারের চেয়ে ভাল ফল করবে ও।’’