• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

তৃতীয় রাউন্ডে রাফা, কোর্টে দেখা গেল মানবিক রূপও

Nadal
দাপট: দ্বিতীয় রাউন্ডে সহজ জয়ের পরে উচ্ছ্বাস নাদালের। —ছবি এএফপি।

Advertisement

অস্ট্রেলীয় ওপেনে দাপটে তৃতীয় রাউন্ডে উঠলেন রাফায়েল নাদাল। বৃহস্পতিবার তিনি দ্বিতীয় রাউন্ডে স্ট্রেট সেটে হারান আর্জেন্টিনার ফেদেরিকো দেলবনিসকে। তবে ম্যাচ খেলার মধ্যেই কয়েক মুহূর্তের জন্য আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিলেন স্প্যানিশ তারকা। বৃহস্পতিবার ম্যাচ খেলার মাঝে যখন তাঁর একটি শট কাছেই দাঁড়িয়ে থাকা বল গার্লের মাথায় গিয়ে লাগে। তখন তৃতীয় সেটে ৪-১ এগিয়ে ছিলেন নাদাল। প্রতিপক্ষের মারা শটের জবাব দিতে গিয়ে নাদাল ফোরহ্যান্ডে শট চালান। কিন্তু তাঁর শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে চেয়ার আম্পায়ারের কাছেই দাঁড়িয়ে থাকা বল গার্লের মাথায় গিয়ে লাগে।

লাইন জাজ ‘আউট’ বলে চিৎকার করতেই আম্পায়ারের চেয়ারের আড়াল থেকে বেরিয়ে এসেছিল সেই বল গার্ল। তখনই নাদালের শট লাগে। সঙ্গে সঙ্গে নাদাল দৌড়ে আসেন সেই বল গার্লের কাছে। সে ঠিক আছে কি না, জানতে চান স্প্যানিশ তারকা। তার গালে চুম্বনও করেন। শেষ পর্যন্ত ম্যাচে ৬-৩, ৭-৬ (৪), ৬-১ জেতার পরে সেই বল গার্লকে নিজের ‘হেড ব্যান্ড’ উপহার দেন ১৯টি গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালিক। পরে নাদাল বলেন, ‘‘ওর জন্য সেই মুহূর্তটা নিশ্চয়ই খুব একটা ভাল ছিল না। বলটা খুব দ্রুত এসে ওর মাথায় আঘাত করেছিল। তবে ও খুব সাহসী মেয়ে।’’

মজা করে এর পরে কোর্টে সাক্ষাৎকার নিতে গিয়ে নাদালকে প্রশ্ন করা হয়, বল গার্লের গালে চুম্বন করার সময় স্ত্রীর কথা কি এক বারও তাঁর মাথায় আসেনি? নাদাল তার জবাবে হাসতে হাসতে বলে দেন, ‘‘১৫ বছর ধরে আমরা পরস্পরকে চিনি। এত বছর পরে নিশ্চয়ই এ সব নিয়ে ও আর ভাবে না।’’ তবে আর যাই হোক না কেন রাফায়েল নাদালের ফোরহ্যান্ড শট যে কী বস্তু, সেটা কখনও ভুলতে পারবেন অস্ট্রেলীয় ওপেনের এই বল গার্ল, সেটা বলাই যায়!

নাদালের পাশাপাশি তৃতীয় রাউন্ডে উঠেছেন রজার ফেডেরারের সতীর্থ স্ট্যান ওয়ারিঙ্কাও। তার জন্য অবশ্য তাঁকে পাঁচ সেট লড়াই করতে হয় আন্দ্রে সেপ্পির বিরুদ্ধে। যে জয়ে তিন বছর পরে প্রথম বার ফের বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যামের তৃতীয় রাউন্ডে উঠলেন তিনি। ম্যাচের পরে ওয়ারিঙ্কা বলেন, ‘‘এ রকম পাঁচ সেটের লড়াই যে কোনও দিকেই গড়াতে পারে। কঠিন হলেও লড়াই ছাড়িনি। শেষ পর্যন্ত যে জিততে পেরেছি, তাতেই খুশি।’’ ২০১৪ সালের চ্যাম্পিয়ন এর পরের রাউন্ডে মুখোমুখি হবেন জন ইসনারের। যিনি প্রথম দু’রাউন্ডের ম্যাচে ৭৮টি এস সার্ভিস করেছেন। তা ছাড়া ছ’ফুট ১০ ইঞ্চি লম্বা মার্কিন তারকার বিরুদ্ধে মুখোমুখি লড়াইয়ে ওয়ারিঙ্কা ১-৩ পিছিয়ে আছেন। 

আগামী প্রজন্মের খেলোয়াড়দের মধ্যে সম্ভাব্য গ্র্যান্ড স্ল্যাম চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ধরা হয় যাঁকে সেই জার্মানির আলেকজান্ডার জেরেভও তৃতীয় রাউন্ডে উঠেছেন। এই নিয়ে টানা চতুর্থ বার। তবে এ বার তিনি তৃতীয় রাউন্ডে উঠেছেন একটিও সেট না হারিয়ে। ৭-৬ (৫), ৬-৪, ৭-৫ ফলে তিনি হারান বেলারুশের ইগর গেরাসিমভকে। সব চেয়ে বড় কথা ২২ বছর বয়সি জেরেভ গত মরসুমেও তাঁকে প্রবল ভাবে ভোগানো সার্ভিসে ডাবল ফল্টের সমস্যা অনেকটাই কাটিয়ে উঠতে পেরেছেন মোলবোর্ন পার্কে। এর আগে তাঁর ম্যাচ প্রতি গড়ে ৬টা ডাবল ফল্ট হত। প্রথম রাউন্ডে জেতার পথে চারটি ডাবল ফল্ট করলেও দ্বিতীয় রাউন্ডে আর ডাবল ফল্ট করেননি তিনি। জেতার পরে জেরেভ বলেছেন, ‘‘গত বছরের থেকে এ বার অনেক কম চাপ অনুভব করছি।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন