টি-টোয়েন্টি মুম্বই লিগে মঙ্গলবার আকর্ষণের কেন্দ্রে ছিলেন সচিন-পুত্র অর্জুন তেন্ডুলকর। গত সপ্তাহে এই লিগের নিলামে পাঁচ লক্ষ টাকা দিয়ে অর্জুনকে দলে সই করিয়েছিল আকাশ টাইগার্স। তাই ১৯ বছর বয়সি অর্জুন প্রথম ম্যাচে নেমে কী রকম পারফর্ম করেন, তা নিয়ে আগ্রহ ছিল তুঙ্গে। সচিন-পুত্র হতাশ করেননি। 

আকাশ টাইগার্স দলের হয়ে নেমেছিলেন তিনি। বিপক্ষ দল ছিল ট্রায়াম্ফ নাইটস। তরুণ মিডিয়াম পেসার বোলিং করতে নেমে তিন ওভারে এক উইকেট নেন ২১ রানের বিনিময়ে। নাইটসের ইনিংস শেষ হয়ে যায় ১৪৭-৬। এর পরে অর্জুন ব্যাটিং করতে নামেন তিন নম্বরে। ব্যাট হাতেও ১৯ বলে ২৩ রানের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন তিনি। যার মধ্যে একটা বাউন্ডারি এবং একটি ছক্কাও ছিল। ইনিংসের শুরুতে খুব একটা তাড়াহুড়ো করেননি অর্জুন। সুযোগ খুঁজছিলেন বাউন্ডারি হাঁকানোর। দ্রুত দুটো সুযোগ চলে আসায় তাঁর সদ্ব্যবহার করেন। কল্পেশ সবন্তের বলে অফ সাইডে বাউন্ডারি মারার পরে বাঁ হাতি স্পিনার বিনায়ক বয়েরের বলে লং অনের দিকে একটি ছক্কাও মারেন। তবে বিনায়কের বলেই ফের ছক্কা মারতে গিয়ে লং অফে ক্যাচ দিয়ে বসেন অর্জুন। তাঁর ব্যাটিংয়ের সাহায্যে ১৯.৩ ওভারে ১৪৮-৫ তুলে জিতে যায় অর্জুনের দল।

মুম্বইয়ের এই ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে প্রথম বার মাঠে নামলেও অর্জুনকে দেখে কোনও রকম চাপে আছেন বলে মনে হয়নি। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই তাঁকে বোলিংয়ের দায়িত্ব দেন দলের অধিনায়ক ধবল কুলকার্নি। অর্জুন সেই দায়িত্ব সাফল্যের সঙ্গেই পালন করেন। সেই ওভারে সাত রান দিলেও ওভারের শেষ বলে কর্ণ শাহকে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠিয়ে দেন।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

ম্যাচের শেষে টুইটারে প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার এবং সচিনের ছোটবেলার বন্ধু বিনোদ কাম্বলি একটি টুইটও করেন অর্জুনের সঙ্গে ছবি পোস্ট করে। কাম্বলি লিখেছেন, ‘‘আগে দুই বাপ জিতত। এখন তাদের ছেলেরাও তাই করে দেখাচ্ছে। আকাশ টাইগার্স এবং অর্জুন প্রথম ম্যাচেই দারুণ খেলল। এর চেয়ে বেশি আর কী আশা করা যায়!’’