• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রাজীব গাঁধী খেলরত্নের জন্য নাম পাঠানো হল বিরাট ও চানুর

Virat-Chanu
বিরাট কোহালি ও মীরাবাঈ চানু।

রাজীব গাঁধী খেলরত্ন পুরস্কারের জন্য নাম প্রস্তাব করা হল ভারতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক বিরাট কোহালি এবং ভারোত্তলক মীরাবাঈ চানুর। যদি মনোনীত হন তা হলে ভারতীয় ক্রিকেটে কোহালিই হবেন তৃতীয় খেলোয়াড় যাঁর হাতে উঠবে রাজীব গাঁধী খেলরত্ন। এর আগে এই পুরস্কার ১৯৯৭-এ পেয়েছিলেন সচিন তেন্ডুলকর ও ২০০৭-এ পেয়েছিলেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি।

ক্রীড়া মন্ত্রকের কাছে ইতিমধ্যেই পৌঁছে গিয়েছে এই দু’টি নাম। এ বার বাকিটা তাদেরই কোর্টে। শোনা যাচ্ছে বিরাট কোহালির নাম নিশ্চিত থাকলেও দ্বিতীয় নামের জন্য লড়াই ছিল শাটলার কিদাম্বি শ্রীকান্ত ও ভারোত্তলক মীরাবাঈ চানুর মধ্যে। গত বছর সুপার সিরিজ সার্কিটে দারুণ সফল ছিলেন তিনি। কিন্তু ৪৮ কেজি বিভাগে বিশ্ব রেকর্ড করে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতে মাত দিয়েছেন চানু।

আইসিসির বিচারে বিরাট কোহালি টেস্টের সেরা ব্যাটসম্যান। গত কয়েক বছর ধরে দারুণ ফর্মে রয়েছেন। গত দু’বছর ধরে তাঁর নাম প্রস্তাব করা সত্ত্বেও মনোনীত হননি। ২০১৬-১৭-তেও তাঁর নাম পাঠানো হয়েছিল। ২০১৬-তে খেলরত্ন অলিম্পিক্সে সাফল্য নিয়ে আসায় এই পুরস্কার পেয়েছিলেন সাক্ষী মালিক, পিভি সিন্ধু ও দীপা কর্মকার। গত বছর সেটা পান সদ্য অবসর নেওয়া হকির প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সর্দার সিংহ।

আরও পড়ুন
বছরের তৃতীয় সোনা, পোলান্ডে সেরা মেরি

এ বার বিরাটের পুরস্কৃত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। ২৯ বছরের বিরাট ইতিমধ্যেই সব ফর্ম্যাটের ক্রিকেট মিলে করে ফেলেছেন ৫৮টি সেঞ্চুরি। সচিনের ১০০ সেঞ্চুরির পর সর্বোচ্চ সেঞ্চুরি তাঁরই। কোহালি অবশ্য একটা জায়গায় ব্যতিক্রম। তিনি তাঁদের মধ্যে পড়েন যাঁরা খেলরত্নের আগে পদ্মশ্রী পেয়েছেন।

চানুকে এই পুরস্কার অবশ্যই প্রেরণা জোগাবে। কারণ কমনওয়েলথ গেমসে সোনা পাওয়ার পর পিঠের চোটের জন্য এশিয়ান গেমসে অংশ নিতে পারেননি তিনি কিন্তু সুস্থ হয়ে উঠে অলিম্পিক্সে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ২০২০ অলিম্পিক্সে তিনি ভারতকে পদক এনে দিতে পারেন বলেই মনে করা হচ্ছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন