Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

খেলা

যে যে কারণে ফ্রান্সের কাছে হারল আর্জেন্টিনা

নিজস্ব প্রতিবেদন
০১ জুলাই ২০১৮ ১১:৫১
আক্ষরিক অর্থেই মার-মার কাট-কাট লড়াই। টানটান ৯০ মিনিট। এবং নক্ষত্রপতন। চুম্বকে এটাই আর্জেন্টিনা বনাম ফ্রান্সের প্রি কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াই। বিশ্বকাপের প্রথম নক আউট ম্যাচে অন্যতম ফেভারিট লাতিন আমেরিকার এই দেশের হারের কারণগুলি কী কী? বিশ্লেষণে আনন্দবাজার। ছবি: রয়টার্স।

কোনও ভাবেই মেসিকে খেলতে দেব না— দেশঁর এই রণনীতি একেবারে অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলেছেন পোগবা-কতেঁরা। মেসির পায়ে বল গেলেই তাঁকে ঘিরে ধরেছেন অন্তত তিন জন ফরাসি ফুটবলার। অনেকটা নীচে নেমে মেসি খেলায় আর্জেন্টিনার প্রধান অস্ত্রটাই ভোঁতা হয়ে গিয়েছিল। ছবি: রয়টার্স।
Advertisement
আর্জেন্টিনার রণনীতি প্রথম থেকেই ছিল ভুলে ভরা। আগুয়েরো, ইগুয়াইনকে রিজার্ভ বেঞ্চে বসিয়ে রেখে শুরুতেই খানিকটা ব্যাকফুটে চলে গিয়েছিল আর্জেন্টিনা। এর ফলে প্রথম থেকেই চাপে পড়ে যায় আর্জেন্টিনার মাঝমাঠ। ছবি: এএফপি।

আর্জেন্টিনার খেলায় হোমওয়ার্কের অভাবের ছাপ ছিল স্পষ্ট। এমবাপে যে গতিতে মাত করতে পারেন, তা বোধহয় ভুলে গিয়েছিলেন সাম্পাওলি। এমবাপের গতির সামনে বারবার খুলে যাচ্ছিল আর্জেন্টিনীয় ডিফেন্সের দরজা। ছবি: রয়টার্স।
Advertisement
অঙ্ক কষে খেলে ম্যাচ জিতল ফ্রান্স। মেসিকে আটকে এবং দুরন্ত গতিতে প্রতি আক্রমণে গিয়ে রোহোদের ডিফেন্সকে ফালাফালা করে ফেললেন এমবাপে-গ্রিজম্যান-জিহুরা। ছবি: রয়টার্স।

গ্রুপ পর্ব থেকেই বোঝা যাচ্ছিল, ছন্দে নেই আর্জেন্টিনা ডিফেন্স। ক্রোটদের বিরুদ্ধে তিন গোল তো বটেই, নাইজিরিয়া এবং আইসল্যান্ডের বিরুদ্ধেও গোল হজম করতে হয়েছে তাদের। সেই দুর্বল ডিফেন্সই বিশ্বকাপ যাত্রা শেষ করল মেসিদের। ছবি: এএফপি।

গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচের পরেও মেসি নির্ভরতা কাটিয়ে উঠতে পারল না আর্জেন্টিনা। বিপক্ষ যেন বুঝেই গিয়েছিল, শুধুমাত্র মেসিকে আটকাতে পারলেই শেষ হবে আর্জেন্টিনার দৌড়। আর হলও তাই। ফ্রান্স শুধু মেসিকে খেলতে না দিয়েই বাজিমাত করে গেল। ছবি: রয়টার্স।

পোগবা, কতেঁ, মাতুইদিদের মাঝমাঠের সামনে নিতান্ত সাদামাটা দেখিয়েছে আর্জেন্টিনা মাঝমাঠকে। বনেগা ছাড়া বাকিদের খুঁজেই পাওয়া যাচ্ছিল না। যার সরাসরি প্রভাব পড়েছে মেসিকে বল যোগানোর ক্ষেত্রে। ছবি: রয়টার্স।