• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মোদীর জন্মদিনে ‘অমর রহে’! অস্বস্তিতে দিলীপ

Dilip Ghosh
—ফাইল চিত্র।

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে জয়ধ্বনি দিতে গিয়েছিলেন। ‘নরেন্দ্র মোদী অমর রহে’ জিগির তুলে দৃশ্যতই অস্বস্তিতে পড়লেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। পুরুলিয়ার হুড়ায় প্রকাশ্য সভা-মঞ্চে তিনি যখন এমন বলছেন, তখন তাঁকে সতর্ক করার চেষ্টা করেন দলের নেতা, সাংসদেরা। মুহূর্তের বিরতি। দিলীপ বলে ওঠেন, ‘‘ঠিক আছে। নরেন্দ্র মোদী যুগ যুগ জিও।’’ 

পুরুলিয়ায় দিলীপবাবু যেমন ‘অমর রহে’ বলে বসেছেন, তেমনই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশের স্ত্রী অমৃতা আবার মোদীকে ‘জাতির জনক’ বলে শ্রদ্ধা জানিয়ে বিতর্ক ডেকে এনেছেন। একগুচ্ছ দলীয় কর্মসূচিতে দিলীপবাবু এ দিন পুরুলিয়ায় গিয়েছিলেন। দুপুরে হুড়ার লালপুরে মিছিল শেষে পথসভায় তিনি দলীয় কর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘‘আজকে নরেন্দ্র মোদীর জন্মদিন। এক বার বলুন নরেন্দ্র মোদী জিন্দাবাদ।’’ সভায় হাজির নেতা-কর্মীরা সমস্বরে বলে ওঠেন, ‘‘জিন্দাবাদ, জিন্দাবাদ।’’ হঠাৎ দিলীপবাবু বলেন, ‘‘নরেন্দ্র মোদী অমর রহে।’’ ‘‘অমর রহে, অমর রহে’’—স্লোগান ফিরিয়ে দেন কর্মীরা। তখনই দিলীপবাবুর দু’পাশে বসা পুরুলিয়ার বিজেপি সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো ও দলের জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী তাঁকে সতর্ক করার চেষ্টা করেন। বক্তব্য থামিয়ে সাংসদের দিকে ফেরেন দিলীপবাবু। তার পরে বলেন, ‘‘যুগ যুগ জিও।’’

বিজেপির একাধিক নেতার বক্তব্য, ‘অমর রহে’ কথাটিতে সাধারণত প্রয়াতদের স্মৃতি উজ্জ্বল রাখতে এই স্লোগানটি দেওয়া হয়। তাই দিলীপবাবুকে ‘সংশোধনের’ চেষ্টা করা হয়। দিলীপবাবুও পরে বলেন, ‘‘অমর রহে বলা উচিত হয়নি, মনে হয়েছে। তাই পরে যুগ যুগ জিও বললাম।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন